advertisement
আপনি দেখছেন

দীর্ঘ ২৮ বছর পর নাগর্নো-কারাবাখের শুশা শহরে আজানের ধ্বনি শোনা গেছে। বুধবার স্থানীয় ঐতিহাসিক ইউখারি গভহার আগা মসজিদে আজান দেন এক আজারি সেনা। সেটির একটি ভিডিও ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

karabakh mosque azan1শুশা শহরে আজানের ধ্বনি

গত সপ্তাহে শান্তি চুক্তির মাধ্যমে আর্মেনিয়া সরকার অঞ্চলটির দখল মুসলিম প্রধান দেশ আজারবাইজানের হাতে ফিরিয়ে দিয়েছে। যা আজারিদের জন্য অনেক বড় জয় বলে মনে করা হচ্ছে।

এর আগে গত ৮ নভেম্বর রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে আজারবাইজানের প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ ঘোষণা দিয়ে বলেন, তার দেশের সৈন্যরা আর্মেনীয় বাহিনীর হাত থেকে শুশা শহর মুক্ত করে নিয়েছে।

দীর্ঘ ২৮ বছর পর শহরটিতে আবারও আজান শোনা যাবে জানিয়ে তিনি বলেন, নাগর্নো-কারাবাখ যে ঐতিহাসিকভাবে আজারবাইজানের ভূমি, এটা আবারও আমরা বিশ্বের কাছে প্রমাণ করেছি।

karabakh mosque azanশুশা শহরে আজানের ধ্বনি

তুর্কি গণমাধ্যম ডেইলি সাবাহর তথ্যমতে, সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে আলাদা হয়ে যাওয়ার পর থেকেই দুই প্রতিবেশী আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে অঞ্চলটি নিয়ে বিবাধ সৃষ্টি হয়। সংঘাত চলাকালে ১৯৯২ সালের ৮ মে শুশা শহর দখল করে নেয় আর্মেনীয় বাহিনী।

নাগর্নো-কারাবাখ অঞ্চলটি আন্তর্জাতিকভাবে আজারবাইজানের বলে স্বীকৃত। কিন্তু নব্বইয়ের দশক থেকে এতদিন পর্যন্ত সেটির নিয়ন্ত্রণ ছিল আর্মেনীয় নৃ-গোষ্ঠীর হাতে।

অন্যদিকে, নিজেদের স্বাধীন বলে ঘোষণা করে অঞ্চলটির বাসিন্দারা। কিন্তু আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি না মেলায় আইনগতভাবে সেটি আজারবাইজানের অধীনেই থেকে যায়।

sheikh mujib 2020