advertisement
আপনি দেখছেন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণ থেকে ফিরে আসা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ফের সেলফ আইসোলেশনে রয়েছেন। সম্প্রতি এক এমপির সংস্পর্শে আসেন তিনি, পরবর্তীতে যার করোনা ধরা পড়ে। তার পরই তিনি সেলফ আইসোলেশনে চলে যান।

boris jonson ukবরিস জনসন

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, তিনি এনএইচএস টেস্ট করিয়েছেন। এতে তার দেহে কোভিড-১৯ এর কোনো লক্ষণ ধরা পড়েনি।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বৃহস্পতিবার অ্যাশফিল্ডের এমপি লি অ্যান্ডারসনের সঙ্গে আধা ঘণ্টার বেশি সময় কাটান জনসন। এর পর অ্যান্ডারসনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়।

jonson and lee ukবৃহস্পতিবার এমপি লির সঙ্গে জনসন, ছবি-গার্ডিয়ান

করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ব্রিটেনে আগামী কয়েক সপ্তাহের জন্য বিভিন্ন বিধি-নিষেধ জারি করার কথা। এ সংক্রান্ত বিশেষ ঘোষণা দেওয়ার কথা ছিল বরিস জনসনের। তার আগে তাকেই সেলফ আইসোলেশনে যেতে হলো।

এক টুইট বার্তায় রোববার রাতে জনসন বলেন, এদিন রাতে তিনি এনএইচএস টেস্ট করিয়েছেন। ফলে তাকে অবশ্যই সেলফ আইসোলেশনে থাকতে হবে। কারণ তিনি এমন একজনের সংস্পর্শে এসেছিলেন, যার কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, তার শরীরে করোনার কোনো উপসর্গ ধরা পড়েনি। তার পরও তিনি সব ধরনের বিধি-নিষেধ অনুসরণ মেনে চলছেন। আইসোলেশনে থেকেও সরকারের মহামারি বিষয়ক সংস্থার প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাবেন বলেও জানান বরিস।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী এও জানিয়েছেন যে, তিনি আগের চেয়ে ভালো অনুভব করছেন। তার শরীরে অ্যান্টিবডি থাকার কারণেও হয়তো এমনটা মনে হচ্ছে। কারণ এর আগেই তিনি সবচেয়ে খারাপ অবস্থার পার করেছেন।

প্রসঙ্গত, এর আগে গত এপ্রিল মাসে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে তিন দিন হাসপাতালে ছিলেন বরিস জনসন। অবস্থা খারাপ হওয়ায় সে সময় তাকে ইনটেন্সিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) রাখা হয়। জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণ থেকে ফিরে স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছিলেন তিনি।

sheikh mujib 2020