advertisement
আপনি দেখছেন

দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ায় রাজ্যজুড়ে লকডাউনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। পিজার দোকানে কাজ করা ব্যক্তির মিথ্যা তথ্যের কারণে করোনাভাইরাস নিয়ে নতুন করে ঝুঁকির মুখে পড়েছে অঞ্চলটি।

lockdown in south australia after a man lies

এপ্রিল মাসের পর এই প্রথম এই অঞ্চলে স্থানীয়ভাবে একজন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শুধু তাই নয়, অন্তত ৩৬ জন নতুন আক্রান্ত হয়েছেন।

কিন্তু এই পরিস্থিতি হয়তো এড়ানো যেতো, যদি ওই ব্যক্তি স্বাস্থ্যকর্মীদের কাছে সত্য দিতেন, এমন মন্তব্য প্রকাশিত হয়েছে বিবিসিতে।

লোকটি দাবি করেছেন যে, তিনি একটি দোকানে পিজা কিনতে গিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি আসলে সেখানে কাজ করেন।

ওই ব্যক্তির মিথ্যা তথ্যের কারণে স্বাস্থ্যকর্মীরা মনে করেছিলেন যে, ব্যক্তিটি কেবল সামান্য সময়ের জন্য ওই পিজার দোকানে গিয়েছিলেন। ফলে তারা সেখানে খুব একটা মনোযোগ দেননি।

নতুন আক্রান্তের শূন্যতে নামিয়ে এনেছিলো অস্ট্রেলিয়া। এর জন্য তারা লকডাউন আরোপ করেছে, প্রচুর লোককে পরীক্ষা করেছে এবং আগ্রাসীভাবে প্রচুর কন্টাক্ট ট্রেসিং করেছে।

রাজ্যের প্রিমিয়ার স্টিভেন মার্শাল বলেন, “আমরা লোকটির উপর ক্রুদ্ধ হয়ে আছি। তার মিথ্যা তথ্যের কারণে ঠিক কী কী সমস্যায় আমাদের পড়তে হতে পারে, তা আমরা খুব খেয়াল করে লক্ষ্য করছি।”

দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার পুলিশ কমিশনার গ্রান্ট স্টিভেন প্রাথমিকভাবে বলেছিলেন, মিথ্যা লোকটি কোনো শাস্তি পাবেন না। কারণ “মিথ্যা বলার কারণে কোনো শাস্তির বিধান নেই”।

কিন্তু পরে তিনি বলেছেন যে পুরো বিষয়টি অত্যন্ত গভীরভাবে তদন্ত করা হচ্ছে। মিথ্যা বলার কারণে কী কী সমস্যা হচ্ছে তা খতিয়ে দেখার পাশাপাশি এটাও দেখা হবে যে এর মাধ্যমে কোনো আইন ভঙ্গ করা হয়েছে কি না।

পুলিশ ওই লোকটির পরিচয় প্রকাশ করেনি। পুলিশের পক্ষ থেকে কেবল বলা হয়েছে যে লোকটি অ্যাডিলেডের উডভিলে পিজা বারে কাজ করতেন।

সিডনি মর্নিং হেরাল্ড জানিয়েছে, পিজা বারে কাজ করা লোকটির একজন সিকিউরিটি গার্ড সহকর্মী আছেন, যে একটি হোটেলের কোয়ারিন্টিন বিভাগ থেকে ভাইরাসে আক্রান্ত হন। এই ঘটনার পরই দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ায় নতুন করে লকডাউন আরোপ করা হয়।

sheikh mujib 2020