advertisement
আপনি দেখছেন

কঠোর গোপনীয়তার মধ্যে গত ২২ নভেম্বর সৌদি আরব সফর করলেও শেষ পর্যন্ত সেটা আর গোপন থাকেনি। সেই ঘটনার তিন দিনের মাথায় জানা গেলো, এবার বাহরাইন ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরে যাচ্ছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। এই খবর জানিয়েছে আনাদোলু এজেন্সি ও আল জাজিরা। প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশ দুটি থেকে নেতানিয়াহুকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

benjamin netanyahu 1 1বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু

আরব দেশগুলোতে ইসরায়েলের কোনো প্রধানমন্ত্রীর সফর একটা ‘বিশেষ ঘটনা’। কারণ এর আগে এমনটা দেখা যায়নি। আর সে জন্যই সৌদি আরবে নেতানিয়াহুর গোপন সফর নিয়ে মুসলিম বিশ্বে তুমুল সমালোচনা হচ্ছে। তবে সেদিকে ভ্রুক্ষেপ না করে আমিরাত ও বাহরাইন সফরের প্রস্তুতি নিচ্ছে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। এই সফর নিয়ে নেতানিয়াহুরও তর সইছে না।

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বলেন- আমি খুবই আনন্দিত যে, স্বল্প সময়ের মধ্যে শান্তিচুক্তির ফল আসতে শুরু করেছে। বাহরাইনের রাজা হামাদ বিন ঈসা এবং আমিরাতের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আমাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। আমি অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গেই এই সফর করবো।

uae israeil flagআরব আমিরাত ও ইসরায়েলের পতাকা

প্রসঙ্গত, গত ২২ নভেম্বর অত্যন্ত গোপন আর স্পর্শকাতর একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু ও সৌদি আরবেন যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের মধ্যে। সৌদি আরবের নিওম শহরে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের প্রধান ইয়োসি কোহেন।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- সফরটি এতটাই স্পর্শকারত ছিলো যে, এ নিয়ে ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কিংবা প্রতিরক্ষামন্ত্রী কিছুই জানতেন না। ব্যক্তিগত বিমানে উড়ে গিয়ে সেখানে মাত্র ২ ঘণ্টা অবস্থানের পর দেশে ফিরে যান নেতানিয়াহু। বৈঠকে কী নিয়ে আলাপ হয়েছে তা নিয়ে মুখ খোলেনি কোনো পক্ষই।

sheikh mujib 2020