advertisement
আপনি দেখছেন

মিয়ানমারের শান প্রদেশের নাউংমন অঞ্চলে অন্তত ১৪ পুলিশ সদস্যকে হত্যা করেছে সেখানকার ক্ষুদ্র জাতিসত্তাগুলোর সশস্ত্র বিদ্রোহীরা। আজ শনিবার ভোরবেলায় এ হামলা হয়। তবে এ ঘটনা নিয়ে এখন পর্যন্ত মুখ খোলেনি সেনাবাহিনী পরিচালিত সরকার।

police killings in myanmarমিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী, ফাইল ছবি

বিদ্রোহী জোটটি দেশটিতে গত ১ ফেব্রুয়ারি ঘটা সেনা অভ্যুথানের বিরোধিতা করে আসছে। এ জোটে আরাকান আর্মি, তাং ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি ও মিয়ানমার ন্যাশনাল ডেমোক্র্যাটিক অ্যালায়েন্স আর্মি রয়েছে।

শান নিউজের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়, হামলায় ১০ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছে। তবে সংবাদ সংস্থা শুয়ি ফি মিয়ায় জানায়, নিহতের পুলিশের সংখ্যা অন্তত ১৪।

খবরে বলা হয়, বিষয়টি নিয়ে মিয়ানমারের জান্তা সরকারের মুখপাত্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। সরকারি ও সেনা নিয়ন্ত্রিত গণমাধ্যমেও এ বিষয়ে কোনো সংবাদ প্রকাশ করা হয়নি।

protests in myanmar 4মিয়ানমারে বিক্ষোভ, ফাইল ছবি

পার্সটুডে জানায়, অং সান সু চির নেতৃত্বাধীন বেসামরিক সরকারকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী মোটেই স্বস্তিতে নেই। দেশজুড়ে বিক্ষোভ দানা বেঁধেছে, প্রতিদিনই হতাহতের খবর আসছে।

এখন পর্যন্ত বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ৬০০’র বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। আহতের সংখ্যাটা অনেক বিশাল। তারপরেও গত দুই মাস ধরে জান্তাবিরোধী আন্দোলন চলছে, দিনকে দিন তা আরো বাড়ছে।

এমতাবস্থায় দেশটির ডজনখানেক সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠী অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভে সমর্থন জানিয়েছে। তারা জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

এদিকে, ক্ষমতাচ্যুত সরকারের আইনপ্রণেতারা আত্মগোপনে থেকে ‘জাতীয় ঐক্যের সরকার’ গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন সম্প্রতি। এই সরকারে রয়েছেন সংখ্যালঘু জাতিসত্ত্বার প্রভাবশালী নেতারাও।