advertisement
আপনি দেখছেন

আফগানিস্তান থেকে প্রত্যাহার করা সেনাদের রাশিয়ার সীমান্তবর্তী কয়েকটি দেশে মোতায়েন করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এতে দেশ দুটির মধ্যে চলমান উত্তেজনা আরো বাড়ার আশঙ্কা করছে হচ্ছে।

us troops withdraw from afghanistan

রুশ বার্তা সংস্থা স্পুৎনিক জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে ন্যাটো জোট ২০০১ সালে হামলা চালায় আফগানিস্তানে। দেশটির ক্ষমতা থেকে উৎখাত হওয়া তালেবানদের সঙ্গে দীর্ঘ প্রায় দুই দশক ধরে চলছে সেই যুদ্ধ।

ব্যয়বহুল এই যুদ্ধ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার উপায় খোঁজা যুক্তরাষ্ট্র ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে তালেবানের সঙ্গে শান্তি চুক্তি করে। তার আওতায় চলতি মে মাসের শুরুর দিকে আফগান ভূখণ্ড থেকে সেনা ও সামরিক সরঞ্জাম সরানোর কাজ শুরু করে দেশটি।

এসব মার্কিন সেনা ও সরঞ্জাম পার্শ্ববর্তী উজবেকিস্তান ও তাজিকিস্তানে মোতায়েনের পরিকল্পনা নিয়েছে ওয়াশিংটন। দেশ দুটি সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন (বর্তমান রাশিয়া) ও আফগানিস্তান সীমান্তে অবস্থিত।

বলা হচ্ছে, পশ্চিমা হুঁশিয়ারি উপেক্ষা করে মধ্য এশিয়ার সীমান্ত এলাকায় সাম্প্রতিক সময়ে সামরিক উপস্থিতি বাড়িয়েছে রাশিয়া। এছাড়া অঞ্চলটিতে নিজেদের প্রভাব অনেকগুণ বাড়িয়েছে চীনও।

us troops withdraw from afghanistan 1

দেশ দুটির এমন পদক্ষেপে এই অঞ্চলে মার্কিন স্বার্থ মারাত্মক হুমকির মুখে পড়ছে, যা যুক্তরাষ্ট্রের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। সে কারণেই উজবেক ও তাজিক এলাকায় সেনা মোতায়েনের চেষ্টা করছে দেশটি।

পার্সটুডের খবরে বলা হয়েছে, জো বাইডেন প্রশাসনের পক্ষে দেশ দুটিতে সামরিক উপস্থিতি তৈরি করা এত সহজ হবে না। কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে, এ অঞ্চলে যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে রাশিয়া-চীনের প্রভাব বেশি রয়েছে।

মার্কিন নির্বাচনে হস্তক্ষেপ এবং সাইবার হামলার অভিযোগ নিয়ে ওয়াশিংটন ও মস্কোর মধ্যে তীব্র উত্তেজনা বিরাজ করছে। এতে গত কয়েক মাস আগে নতুন মাত্রা যোগ করে ক্রিমিয়ায় রুশ সেনা মোতায়েনের ঘটনা।