advertisement
আপনি দেখছেন

মার্কিন সরকার তাদের ঘনিষ্ঠ মিত্র ইসরায়েল থেকে শতাধিক সেনা ও কিছু বেসামরিক নাগরিক সরিয়ে নিয়েছে। একই সঙ্গে মার্কিন নাগরিকদের ইসরায়েল ভ্রমণের ক্ষেত্রে সতর্কতা জারি করেছে যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসন।

us soldier leave israel

প্রসঙ্গত, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট বাইডেন সরকার এমন সময় এই সিদ্ধান্ত নিলো যখন ইসরায়েলের সঙ্গে ফিলিস্তিনের হামাস ও অন্যান্য প্রতিরোধ সংগঠনগুলোর মধ্যে অঘোষিত যুদ্ধ চলছে। ইতোমধ্যে ইসরায়েলের ‘নিরবচ্ছিন্ন’ বিমান হামলায় ৮০ জনের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত এবং কয়েক শ আহত হয়েছেন। অন্যদিকে, ফিলিস্তিন তথা গাজা থেকে ছোড়া শত শত রকেটে এক প্রকার নাস্তানাবুদ ইসরায়েল। একই সঙ্গে ইসরায়েলে ছড়িয়ে পড়েছে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাও।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, একটি সি-১৭ পরিবহন বিমানে করে ইসরায়েল থেকে ১২০ জনের একটি সেনা দলকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে এবং তারা জার্মানির মার্কিন ঘাঁটিতে ফিরিয়ে গেছে। যৌথ সামরিক মহড়ার জন্য এই সেনা দলটি ইসরায়েলে গিয়েছিল বলে দাবি করেছে পেন্টাগন।

hamas missiles

এ বিষয়ে পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে জার্মানির রামস্টেইন ঘাঁটিতে পৌঁছেছে মার্কিন সেনারা। ইসরায়েলের মিত্রদের সঙ্গে পরামর্শের ভিত্তিতেই সেনা সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয় বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

এদিকে, মধ্যপ্রাচ্যের গুরুত্বপূর্ণ এই অঞ্চলের চলমান পরিস্থিতিতে ইসরায়েল সফর না করার জন্য নিজেদের নাগরিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর। বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, ইসরায়েল ও গাজার মধ্যে চলমান যুদ্ধপরিস্থিতির কারণেই এই আহ্বান জানানো হচ্ছে।