advertisement
আপনি দেখছেন

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী অভিযোগ করেছেন যে, রাজ্যে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় ‘বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গারা’ জড়িত। বিজেপি সরকারের তথা ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে এমন অভিযোগ করেছেন তিনি।

suvendu meet modi delhiনরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দিল্লিতে শুভেন্দুর সাক্ষাৎ

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, দিল্লিতে গিয়ে গতকাল বুধবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেন শুভেন্দু। এর পর নিজেই সাংবাদিকদের বিষয়টি জানান তিনি।

এ ছাড়া ওই দিন দিল্লিতে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গেও বৈঠক করেন শুভেন্দু অধিকারী। পশ্চিমবঙ্গে ভোট পরবর্তী সহিংসতার বিষয় নিয়ে ওই বৈঠকেও আলোচনা হয়েছে বলে জানান সম্প্রতি বিজেপি শিবিরে যোগ দেওয়া এই নেতা।

suvendu meet shah delhiদিল্লিতে অমিত শাহের সঙ্গেও দেখা করেন শুভেন্দু

নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক শেষে দিল্লিতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে শুভেন্দু বলেন, পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে বিজেপি কর্মীদের ওপর নির্যাতন চালানো হচ্ছে। ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ২৫ জন নারী। এসব বিষয় তিনি মোদিজিকে (নরেন্দ্র মোদি) বলেছেন। আর এসব অপরাধের ‘বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গারা’ জড়িত বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এ ছাড়াও কেন্দ্রীয় সরকারের প্রধানমন্ত্রীকে শুভেন্দু অধিকারী জানান যে, রাজ্যে হাজারো মানুষ ঘরছাড়া হয়েছেন। এমনকি পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রামের ২৬টি পরিবার আতঙ্কে জঙ্গলের মধ্যে লুকিয়ে আছে। এ সময় তিনি অভিযোগ করেন যে, পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্র রক্ষা হচ্ছে না।

এদিকে, শুভেন্দু অধিকারীর ওই বৈঠকের বিষয়ে এক প্রতিক্রিয়ায় রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, শুভেন্দু এখন আত্মরক্ষার জন্য দিল্লিতে গিয়ে দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছেন।

অন্যদিকে, মমতা সরকারের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেছেন, আসলে বিজেপিতে যোগ দিয়ে ফেঁসে গেছেন শুভেন্দু।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের আগে বিজেপিতে যোগ দেন শুভেন্দু অধিকারী। এর আগে তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের প্রভাবশালী নেতাদের একজন ছিলেন।