advertisement
আপনি দেখছেন

যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে থাকা তুরস্কের সেনাদের অবিলম্বে দেশটি ছেড়ে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছে তালেবান। ২০২০ সালে সম্পাদিত এক চুক্তির আওতায় দ্রুত তুর্কি সেনা প্রত্যাহার চায় সংগঠনটি।

turkish troops called out of afghanistanআফগানিস্তানে তুর্কি সামরিক কর্মকর্তারা, ফাইল ছবি

আলজাজিরা জানায়, আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে দুই পক্ষের মধ্যে চুক্তি হয়েছে। এমন প্রেক্ষাপটে কাবুলের বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সেদেশ সেনা রাখার প্রস্তাব দিয়েছিল তুরস্ক।

সমুদ্র পথ না থাকায় আফগানিস্তান থেকে পশ্চিমা সেনা প্রত্যাহারের একমাত্র উপায় আকাশ পথ। এ জন্য কাবুলের বিমানবন্দরগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

turkish troops in afghanistanআফগানিস্তানে তুর্কি সেনা, ফাইল ছবি

বিষয়টি সামনে রেখে বিদেশি সেনা প্রত্যাহার শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিমানবন্দরটির নিরাপত্তা দিতে চায় তুরস্ক। এতে পুরো প্রক্রিয়াটি নিরাপদ করা সম্ভব হতো, যাতে ওয়াশিংটনের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়ন হতো আঙ্কারার।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এস-৪০০ কেনাকে কেন্দ্র করে টানাপড়েন চলছে ন্যাটোভুক্ত দেশ তুরস্কের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের। এ ক্ষেত্রে বাইডেন প্রশাসনের দৃষ্টিভঙ্গির ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটাতে চাইছে এরদোয়ান সরকার।

afgan taleban leadersতালেবান নেতারা, ফাইল ছবি

এমতাবস্থায় তুর্কি সেনাবাহিনীর আফগানিস্তানে থেকে যাওয়ার প্রস্তাব মানতে নারাজ তালেবানরা। তারা বলছে, অন্য বিদেশি সেনাদের সঙ্গে তুর্কি সেনাদেরও কাবুল ছাড়তে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটোর সদস্য হওয়ায় তালেবানদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেছে তুরস্কের সেনারা। ফলে চুক্তি অনুযায়ী দেশটির সেনাদেরও প্রত্যাহার চাইছে প্রয়াত মোল্লা ওমরের সংগঠন তালেবান।