advertisement
আপনি দেখছেন

সম্প্রতি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সরকার প্রবর্তিত যে একক জাতীয় শিক্ষাক্রম (এসএনসি) প্রণয়ন করা হচ্ছে সেটি পুনর্বিবেচনার আহবান জানিয়েছেন দেশটির বেশ কয়েকজন শিক্ষাবিদ। এক প্রতিবেদনে এই খবর জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএনআই।

imran khan 1ইমরান খান

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নতুন এসএনসি-তে সংখ্যাগরিষ্ঠের ধর্মের বেশি উপস্থাপন হয়েছে জানিয়ে নারী ও সংখ্যালঘুদের যে খণ্ডিত উপস্থাপন হয়েছে তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন দেশটির শিক্ষাবাদিরা। ফলে, বিষয়টি পুনর্বিবেচনার আহবান জানিয়েছেন তারা।

এদিকে, 'দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনাল' জানিয়েছে, শিক্ষাবিদদের এই ধরনের আশঙ্কার জবাব দেওয়ার পরিবর্তে, যারা এসএনসি পর্যালোচনার আহ্বান জানিয়েছেন তাদের সরকারি পদক্ষেপে বাধা দেওয়ার অভিযোগ করেছেন পাকিস্তানের নীতিনির্ধারকরা।

এর আগে, গত ১৬ আগস্ট এসএনসি প্রবর্তন করে ইমরান খানের সরকার। দলটির নেতারা একে শিক্ষাব্যবস্থায় বৈষম্য দূর করার একটি 'মাইলফলক' বলে অভিহিত করেন। তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শিক্ষানীতি প্রয়োগের আগে ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করা উচিত ছিলো। বিশেষ করে, সল্পমাত্রায় প্রয়োগ করে এর দুর্বল দিকগুলো পরিবর্তন করা উচিত ছিলো। কিন্তু নীতিনির্ধারকেরা সে পথে হাটেননি। ফলে, এর যথেষ্ট দুর্বলতা রয়ে গেছে।

দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনাল জানায়, রাজনৈতিকভাবে ফায়দা নিতে ইমরান খানের সরকার তাড়াহুড়ো করে এই শিক্ষানীতি প্রয়োগ করছে। ফলে, সেখানে নারী ও সংখ্যালঘুদের যথাযথ উপস্থাপন হয়নি। আর সেই অবস্থাতেই এটির আলোকে শ্রেণি কক্ষে পাঠদান করানো হচ্ছে।

সূত্র- এএনআই