advertisement
আপনি দেখছেন

লাতিন আমেরিকার দেশ কিউবা প্রথমবারের মতো নিজেদের উৎপাদিত কোভিড ভ্যাকসিন রপ্তানি করতে শুরু করেছে। প্রাথমিক একটি চালান ভিয়েতনামে পাঠিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এই কার্যক্রম চালু করে তারা। দুই দেশের মধ্যে করা চুক্তির অংশ হিসেবে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে ৫০ লাখ ভ্যাকসিন পাঠাবে কিউবা।

abdala coronavirus vaccineকিউবার উৎপাদিত আবদালা ভ্যাকসিন

কিউবা তিন ডোজের এই ভ্যাকসিনের নাম দিয়েছে আবদালা। এ নিয়ে কিউবা মোট তিনটি ভ্যাকসিন তৈরি করেছে। অন্য দুটি ভ্যাকসিনের নাম হচ্ছে সোবারানা ২ এবং সোবারানা প্লাস। এখন পর্যন্ত  কোনোটিই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি পায়নি। তবে কিউবা আশাবাদী, শিগগির তিন ভ্যাকসিনেরই স্বীকৃত পেয়ে যাবে। রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

রাষ্ট্র পরিচালিত ফার্মাসিউটিক্যাল কর্পোরেশন বায়োকিউবাফার্মা গতকাল শনিবার টুইটারে ভ্যাকসিন রপ্তানির এই ঘোষণা দেয়। এর আগে তারা জানিয়েছিল, নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে স্থানীয় জনসংখ্যার ৯০ শতাংশকে ভ্যাকসিন দেয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে কাজ করছে।

cuba corona fighterকোভিড মহামারির শুরু থেকেই সতর্ক অবস্থানে কিউবা

বায়োকিউবাফার্মা জানায়, আবদালা, সোবারানা ২ এবং সোবারানা প্লাস ভ্যাকসিনের বার্ষিক ১০ কোটি ডোজ উৎপাদনের ক্ষমতা রয়েছে তাদের। এই ভ্যাকসিনগুলো কোভিড-১৯ এ গুরুতর অসুস্থ হওয়ার বা মৃত্যুঝুঁকি প্রায় ৯০ শতাংশ কমিয়ে ফেলতে সক্ষম।

বায়োকিউবাফার্মা কর্পোরেটের ভাইস প্রেসিডেন্ট মায়দা মৌরি বলেন, দেশীয় চাহিদা পূরণ হয়ে গেলে ইরান ও ভেনেজুয়েলাসহ বিভিন্ন দেশে ভ্যাকসিন সরবরাহ শুরু করবে কিউবা। আর্জেন্টিনা ও বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের অন্যান্য দেশের সাথে এ বিষয়ে মতবিনিময় হয়েছে।

ইরান ইতোমধ্যে সোবারানা-২ ভ্যাকসিন তৈরি করতে শুরু করেছে। ভিয়েতনাম, আর্জেন্টিনা ও মেক্সিকো বলেছে, তারা খুব শিগগিরই কিউবার ভ্যাকসিন তৈরি শুরু করবে। এছাড়া আরও কিছু দেশ কোভিড-১৯ প্রতিরোধে চিকিৎসা প্রোটোকল অনুযায়ী কিউবার ওষুধ ব্যবহার করছে।