advertisement
আপনি দেখছেন

পাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী শওকত তারিন বলেছেন, আশির দশকে আফগান যুদ্ধে অংশগ্রহণ এবং নাইন-ইলেভেনের পর ‘সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ’ দেশের অর্থনীতিকে অস্থিতিশীল করে তুলেছিল, যার কুফল এখনও বয়ে বেড়াচ্ছে পাকিস্তান। অর্থাৎ দুই আফগান যুদ্ধেরই মারাত্মক প্রভাব পড়েছে পাকিস্তানে।

shaukat tarinপাকিস্তানের অর্থমন্ত্রী শওকত তারিন

বর্তমান সরকার জাতীয় উন্নয়নের জন্য স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে। গত শনিবার (৯ অক্টোবর) রাতে পাঞ্জাব ইউনিভার্সিটি ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের বার্ষিক নৈশভোজের অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। দ্য ডন।

শওকত তারিন বলেন, কৃষিসহ উৎপাদনশীল খাতগুলোকে উৎসাহিত করার জন্য দেশে অন্তর্ভুক্তিমূলক এবং টেকসই প্রবৃদ্ধির খুব প্রয়োজন। রাজস্ব বৃদ্ধি ও টেকসই প্রবৃদ্ধিই দেশকে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) এবং বিশ্বব্যাংকের কর্মসূচি এড়াতে সাহায্য করতে পারে।

তিনি বলেন, ১৯৬০-এর দশকে পাকিস্তানের অর্থনীতি দক্ষিণ কোরিয়ার চেয়ে অনেক ভালো ছিল। কিন্তু বর্তমানে পাকিস্তানে মাথাপিছু আয় ১ হাজার ৫০০ ডলার, যেখানে দক্ষিণ কোরিয়ায় ২৫ হাজার ডলার। পাকিস্তানকে তার রপ্তানি বাড়াতে হবে এবং ব্যবসার উন্নতি ও বিনিয়োগ আকর্ষণের জন্য একটি অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে।

পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক নিয়াজ আহমেদ বলেন, তার বিশ্ববিদ্যালয় আন্তর্জাতিক র‌্যাংকিংয়ে তিন বছরে ১৬ শতাংশ উন্নত হয়েছে এবং ১৩টি বিষয় কিউএস র‌্যাংকিংয়ে স্থান পেয়েছে।