advertisement
আপনি দেখছেন

আফগানিস্তানের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। সংস্থাটির পক্ষ থেকে গতকাল মঙ্গলবার আফগানবাসীর জন্য ১০০ কোটি ইউরো অর্থসাহায্য ঘোষণা করা হয়েছে। ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লিয়েন বলেন, মানবিক ও আর্থ-সামাজিক বিপর্যয় থেকে আফগানিস্তানকে বাঁচাতেই এই পদক্ষেপ নিয়েছে ইইউ।

afghannistanমানবিক বিপর্যয়ের মুখে পড়তে চলেছে আফগানিস্তান

উরসুলা জানিয়েছেন, এ ১০০ কোটি ইউরোর মধ্যে ২৫ কোটি দেওয়া হবে আফগানিস্তানের কয়েকটি প্রতিবেশী দেশকে, যারা আফগান শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়েছে। আফগানিস্তানে আর্থিক সঙ্কট নিয়ে মঙ্গলবার জি-২০-র ভার্চুয়াল বৈঠকেও আলোচনা হয়েছে।

মধ্য আগস্টে তালেবানের ক্ষমতা দখলের পরে আন্তর্জাতিক অনুদান কার্যত বন্ধ হয়ে যায় আফগানিস্তানে। এমনকি অনেক দেশ কাবুলের পাওনা অর্থও আটকে দেয়। এসবের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ নেতিবাচক প্রভাব পড়ে দেশের গরিব ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর ওপর। চলতি বছরের শুরুর দিকে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে প্রকাশিত একটি পরিসংখ্যানে দেখা যায়, আফগানিস্তানের প্রায় অর্ধেক জনসংখ্যা আন্তর্জাতিক অর্থসাহায্যের উপর নির্ভরশীল।

eu headইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডার লিয়েন

গত সেপ্টেম্বরে জেনেভায় অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের বৈঠকে জানানো হয়, আফগানিস্তানের মানবিক বিপর্যয় সামলাতে অন্তত ৬০ কোটি ডলার আপৎকালীন অর্থসাহায্য প্রয়োজন।

জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস সদস্য দেশগুলির কাছে আফগান-অনুদানের আবেদন জানিয়ে বলেন, ‘ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম’ (ডব্লিউএফপি) কর্মসূচি রূপায়ণে ওই অর্থ ব্যবহৃত হবে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও আফগানিস্তানে মানবিক বিপর্যয় এড়াতে অর্থসাহায্যের আবেদন জানান জাতিসংঘে।

সূত্র: আল জাজিরা