advertisement
আপনি পড়ছেন

করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘ওমিক্রন’ নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে উঠছে সারা বিশ্ব। দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হওয়া এই ধরনকে ‘ভ্যারিয়েন্ট অব কনসার্ন’ বলে আখ্যা দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে বিভিন্ন ব্যবস্থা নিচ্ছে দেশগুলো। সেই ধারাবাহিকতায় যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে। দ্য ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

kathy hochulগভর্নর ক্যাথি হোচুল

আগামী ৩ ডিসেম্বর থেকে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত এই জরুরি অবস্থা জারি থাকবে। রাজ্যটির গভর্নর ক্যাথি হোচুল বলেছেন, করোনার উদ্বেগজনক ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনে নিউইয়র্কে এখনো কেউ আক্রান্ত হয়নি। তবে আমরা আগাম সতর্কতা জারি রাখতে চাই। ভ্যারিয়েন্টটি যেন এখানে প্রবেশ করতে না পারে, সেই প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখা হবে।

এর আগে করোনার এই নতুন ভ্যারিয়েন্ট ঠেকাতে আফ্রিকার সাত দেশের সাথে বিমান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র সরকার।

হোয়াইট হাউসের প্রধান চিকিৎসা উপদেষ্টা ড. অ্যান্থনি ফাউসি বলেছেন, ওমিক্রণের বিষয়ে আমরা গবেষণা করছি। সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আগেই এই ভ্যারিয়েন্ট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হবে। তা না হলে এটাকে ঠেকানো সম্ভব হবে না।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট অনেকবার মিউটেশন করেছে। এ কারণে নতুন করে সংক্রমণের হার বেড়ে গেছে। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রায় সবকটি প্রদেশে দ্রুত সংক্রমণ ছড়াচ্ছে এই ভ্যারিয়েন্ট। এছাড়া বসতোয়ানা, ইসরায়েল ও হংকংয়ে নতুন ধরনটির সন্ধান মিলেছে। ইউরোপের দেশ বেলজিয়ামেও কয়েকজনের শরীরে শনাক্ত হয়েছে ধরনটি।