advertisement
আপনি পড়ছেন

নতুন করে বিশ্ববাসীর মনে শঙ্কা জাগিয়েছে করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এটাকে ঘোষণা করেছে ‘উদ্বেগজনক ভ্যারিয়েন্ট’ হিসেবে। দেশগুলো বিভিন্ন প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিচ্ছে। সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। তবে এই অস্থির অবস্থার মধ্যে করোনা ভ্যাকসিন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বায়োএনটেকের প্রধান বলছেন, ওমিক্রন নিয়ে এতটা আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

ugur sahinউগুর শাহিন

গতকাল মার্কিন সংবাদ মাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বায়োএনটেকের সিইও উগুর শাহিন বলেন, ওমিক্রন কতটা ক্ষতিকর, তা এখনো নিশ্চিত হতে পারেননি চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা। আমাদের ধারণা, ভ্যারিয়েন্টটি ছড়িয়ে পড়লেও গুরুতর অসুস্থ হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পাবে মানুষ। তাই সবার উদ্দেশে আমাদের বার্তা হলো, আতঙ্কিত হবে না।

কোনো কোনো চিকিৎসাবিজ্ঞানী আবার ওমিক্রনকে আশীর্বাদও ভাবছেন। তেমনই একজন ভাইরাস বিশেষজ্ঞ মার্ক ভ্যান। তিনি বলছেন, যদি শেষ পর্যন্ত দেখা যায় করোনার এই নতুন ধরণ ততটা ভয়ংকর নয়, কিন্তু অনেক বেশি ছোঁয়াচে তাহলে তা আশীর্বাদ হয়ে দাঁড়াতে পারে। কারণ সেক্ষেত্রে ওমিক্রন ডেল্টা স্ট্রেনকে সরিয়ে প্রধান সংক্রামক হয়ে উঠবে। যা অত্যন্ত পজিটিভ একটা ব্যাপার।

friday updateকরোনাভাইরাস

মার্ক ভ্যানের প্রত্যাশার জায়গাটা হচ্ছে, এই মুহূর্তে সংক্রমণের ক্ষেত্রে শীর্ষে আছে ডেল্টা। বর্তমানে এই স্ট্রেনে আক্রান্ত ৯০ শতাংশেরও বেশি মানুষ। এ অবস্থায় ওমিক্রন যদি ডেল্টার দাপট কমাতে পারে, তাহলে করোনার ভয়াবহতা পুরোটাই কমে যেতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অবশ্য এ ব্যাপারে সতর্ক করে আসছে। সংস্থাটি বলছে, নতুন করে কোভিডবিধির দিকে নজর দিতে হবে সবাইকে। ভিড় করা, মাস্ক না পরা ইত্যাদি বিষয়ে কড়া সতর্কতা ফেরাতে হবে। এর মধ্যে ওমিক্রন নিয়ে মুখ খুলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্টও। তিনি বলেন, আতঙ্কিত না হয়ে মাস্ক ব্যবহারসহ করোনা প্রতিরোধে অন্য বিষয়গুলোর দিকে যত্নবান হতে হবে।