advertisement
আপনি পড়ছেন

সৌদি আরব আগামী বছর মধ্যপ্রাচ্যের বৃহত্তম সঙ্গীত উৎসবের আয়োজন করবে, যেখানে প্রধান আন্তর্জাতিক সঙ্গীতজ্ঞদের অংশগ্রহণ থাকবে। উৎসবটি ২০২২ সালের ১৬-১৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। এটি দেশটির পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অধীনে স্পিরিট অফ সৌদি আরব প্রকল্পের অধীনে চালু করা একটি উদ্যোগের অংশ। যা সৌদি শীতকালে (অক্টোবর থেকে) অনুষ্ঠিত হওয়ার জন্য নির্ধারিত সমস্ত পর্যটন কার্যক্রম এবং ইভেন্টগুলোকে হাইলাইট করে। খবর দ্য নিউ আরব।

riyadh festival 2021মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে বড় সঙ্গীত উৎসব করবে সৌদি, ফাইল ছবি

সৌদি কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে, আমরা আশা করছি, উৎসবটি দেশ, উপসাগরীয় অঞ্চল এবং বাকি বিশ্বের তরুণ পর্যটকদের আকর্ষণ করবে। উৎসবে অংশ নেবে নেদারল্যান্ডস, নিউইয়র্ক, কানাডা, রাশিয়া, ফ্লোরিডা এবং অন্যান্য দেশ থেকে আসা প্রায় ২০০ সঙ্গীত শিল্পী।

সৌদি আরব ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে পর্যটন ভিসা চালু করেছিল। কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারিজনিত কারণে ভ্রমণ স্থগিত হয়ে যায়। এ ছাড়া বন্দর ও সীমান্ত বন্ধ করার অনুমোদনের আগে ছয় মাসের মধ্যে চার লাখ ভিসা দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু কোনো ফল হয়নি। চলতি বছরের অক্টোবরে সৌদি আরব তার প্রথম সরকারি সমুদ্র সৈকত খুলেছে।

riyadh festival 2021 innerমধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে বড় সঙ্গীত উৎসব করবে সৌদি, ফাইল ছবি

খবরে বলা হচ্ছে, সৌদি আরব আরব বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ। দেশটির জটিল প্রশাসনিক পদ্ধতি এবং অপ্রচলিত বিধিবিধানসহ অতি রক্ষণশীলতার কারণে জাতি হিসেবে নানা সমালোচনার শিকার। ২০১৭ সালে ডি ফ্যাক্টো লিডার হওয়ার পর থেকে প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ব্যাপক অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিবর্তনের সূচনা করেছেন। যার মধ্যে নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়া, সিনেমা হল পুনরায় চালু করা, সঙ্গীত কনসার্ট এবং অন্যান্য বিনোদনের বিকল্পগুলোকে অনুমতি দেওয়া।

খবরে বলা হচ্ছে, ২০১৭ সাল পর্যন্ত সৌদি আরবে পাবলিক প্লেসে গান নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। তাছাড়া ধর্মীয় পুলিশ নিয়োগ ও মহিলাদের গাড়ি চালনা নিষিদ্ধ ছিল। কিন্তু একই সাথে যুবরাজ ভিন্নমত ও বাক-স্বাধীনতার বিরুদ্ধে ব্যাপক ক্র্যাকডাউন শুরু করেন। নারী কর্মী, ধর্মগুরু এবং সাংবাদিকদের পাশাপাশি রাজপরিবারের সদস্যদের গ্রেপ্তার করেন।