advertisement
আপনি পড়ছেন

দক্ষিণ কোরিয়ার বিখ্যাত উল্কি শিল্পীদের একজন ডু ইউন কিম। তার ডাক নাম- ডয়। তিনি ব্র্যাড পিট, লিলি কলিন্স এবং স্টিভেন ইয়ুনের মতো হলিউড সেলিব্রিটিদের শরীরেও ট্যাটু এঁকেছেন। কিন্তু গত মাসে ডয়কে সিউলের একটি আদালতে তোলা হয়। তার অপরাধ, তিনি ট্যাটু বা উল্কি আঁকেন। বিবিসি।

tattooist doy south koreaদক্ষিণ কোরিয়ার বিখ্যাত উল্কি শিল্পী ডয়

একজন জনপ্রিয় কোরিয়ান অভিনেত্রীকে কালি দেওয়ার একটি ভিডিও ভাইরাল হওয়ার পর ডয়কে চিকিৎসা আইন লঙ্ঘনের জন্য দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তাকে পাঁচ মিলিয়ন ওয়ান বা ৪ হাজার ২০৫ ডলার জরিমানা করা হয়।

হাই-প্রোফাইল মামলাটির কারণে বিশ্বের নজর আবারও দক্ষিণ কোরিয়ায় নিবদ্ধ হয়েছে। ট্যাটু সংক্রান্ত কঠোর আইনের মধ্যে গোপনে ট্যাটু শিল্পীরা দেশটিতে কাজ করে। ডয় বিবিসিকে বলছেন, যখন আমি বিদেশে থাকি, ব্র্যাড পিটের মতো সেলিব্রিটিদের সাথে কাজ করি। লোকেরা আমাকে ‘শিল্পী’ বলে ডাকে। আর দেশে আমি একজন আইন ভঙ্গকারী।

দক্ষিণ কোরিয়ায় ট্যাটু অঙ্কন একটি অপ্রচলিত ক্যারিয়ার। অতীতে প্রায়শই দক্ষিণ কোরিয়ায় গ্যাংস্টার বা রাস্তার অপরাধীরা শরীরে ট্যাটু স্থাপন করত। এখনও যাদের ট্যাটু রয়েছে তারা তাদের চাকরি হারানোর ঝুঁকি রয়েছে। দেশটির অভিনেতারাও শরীরে ট্যাটু আঁকতে পারেন না।

১৯৯২ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার সুপ্রিম কোর্ট ট্যাটু কালি এবং সূঁচ দ্বারা সৃষ্ট সংক্রমণের ঝুঁকির কারণে উল্কিকে নিষিদ্ধ করেছিল। শুধু লাইসেন্সপ্রাপ্ত চিকিৎসা পেশাদারদের ট্যাটু কালি করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। তবে এত বাধার মধ্যেও দেশটিতে ট্যাটু শিল্পীরা কাজ করে। তবে সরকারের খাতায় তাদের নাম নেই।

কোরিয়া ইনস্টিটিউট ফর হেলথ অ্যান্ড সোশ্যাল অ্যাফেয়ার্সের ২০১৯ সালের গবেষণা অনুসারে, কোরিয়াতে আনুমানিক ২ লাখ ট্যাটু শিল্পী রয়েছে। তারা গোপনে কাজ করেন। যারা ধরা পড়বে তাদের কমপক্ষে দুই বছরের জেল এবং ১০ লাখ টাকা জরিমানা হতে পারে।

কর্তৃপক্ষ সক্রিয়ভাবে ট্যাটু স্টুডিও সিলগালা করার অভিযানে না নামলেও অভিযোগ পেলে পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়। অনেক গ্রাহক আছে যারা অর্থপ্রদান করতে অস্বীকার করলেও ট্যাটু শিল্পীদের করার কিছুই থাকে না। কারণ পুলিশে রিপোর্ট করার হুমকি থাকে।

ডয় ১৫ বছর ধরে উল্কি শিল্পী হিসেবে কাজ করেন। তিনি বলছেন, তিনি যখন শুরু করেছিলেন তখন নার্ভাস ছিলেন। তবে অনেক ভয়ের মধ্যেও তিনি নিরাপদ পরিবেশে গোপনে কাজ করতে সক্ষম হয়েছেন।

তিনি তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে ডিজাইন পোস্ট করেন এবং কাকাও চ্যাট অ্যাপের মাধ্যমে ক্লায়েন্টদের সাথে যোগাযোগ করেন। তিনি ট্যাটুতে নরম রঙ ব্যবহার করেন এবং প্রায়শই গাছপালা এবং প্রাণীকে চিত্রিত করেন।