advertisement
আপনি পড়ছেন

পাকিস্তানের তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের শাখা ইউনিভার্সাল সার্ভিস ফান্ড (ইউএসএফ) গিলগিট-বালতিস্তান ও কাশ্মিরের পাকিস্তান অংশে টেলিযোগাযোগ প্রকল্প চালু করতে অস্বীকার করেছে। তারা বলছে, অঞ্চলগুলো সাংবিধানিকভাবে পাকিস্তানের অংশ নয়।

gilgit baltistan 1গিলগিট-বালতিস্তান

ইউএসএফ একটি চিঠিতে বলেছে, মোবাইল ফোন কোম্পানিগুলো বিষয়টি নিয়ে আপত্তি করতে পারে। এই পরিস্থিতি পাকিস্তানের জন্য বড় বিব্রতকর। ভারত বলে, স্থানীয় বাসিন্দাদের প্রচণ্ড বিরোধিতা সত্ত্বেও গিলগিট-বালতিস্তান ও কাশ্মিরের অংশ পাকিস্তান দখল করে রেখেছে।

গিলগিট-বালতিস্তানের মুখ্যমন্ত্রী খালিদ খুরশিদ ইউএসএফকে ওই অঞ্চলে তাদের পরিষেবা সম্প্রসারণের জন্য অনুরোধ করেছিলেন। তিনি চেয়েছিলেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পাহাড়ি এলাকায় ইন্টারনেট সংযোগ উন্নত করার জন্য এজেন্সি প্রকল্পটি শুরু করুক। কারণ, দেশের অন্যান্য অংশে অবিরাম কাজ করছে ইউএসএফ।

ভারতীয় গোয়েন্দা সূত্রের খবরে বলা হয়েছে, এই পরিস্থিতি গিলগিট-বালতিস্তান ও কাশ্মিরের প্রতি পাকিস্তানের ভণ্ডামি প্রকাশ করেছে।

ইউএসএফ এমনকি ফাতা ও বেলুচিস্তানের বিপর্যস্ত অঞ্চলগুলোতেও পরিষেবা সরবরাহ করে, কিন্তু তারা কাশ্মিরিদের প্রত্যাখ্যান করছে। এটি স্পষ্টভাবে নির্দেশ করে, উভয় অঞ্চলের বাসিন্দাদের দেশের বাকি অংশ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

যদিও গত বছরের প্রতিবেদন অনুযায়ী, পাকিস্তান সরকার আশা করেছিল, সেপ্টেম্বরে পাকিস্তান অধীকৃত কাশ্মির ও গিলগিট-বালতিস্তানের জন্য পরবর্তী প্রজন্মের মোবাইল পরিষেবাগুলি চালু এবং টেলিযোগাযোগ ও ব্রডব্যান্ড পরিষেবা উন্নত করবে।

সূত্র: নিউজ এইটিন