advertisement
আপনি পড়ছেন

মানবিক সংকটের কারণে ‌আফগান জনগণের ‌‘দুঃস্বপ্ন’ প্রতিরোধে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও বিশ্বব্যাংকের প্রতি তহবিল ছাড়ের আবেদন জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তেনিও গুতেরেস। তালেবানের ক্ষমতায় আসার পর থেকে আফগানিস্তানের তহবিল বন্ধ করে দেয় তারা।

antonio guterres unঅ্যান্তেনিও গুতেরেস

নতুন বছরে আফগানিস্তানের জন্য ৫ বিলিয়ন ডলার সাহায্যের প্রয়োজনের বিষয়টি জাতিসংঘে উত্থাপিত হওয়ার দুদিন পর গতকাল বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসের কাছ থেকে এই আবেদনটি আসল। টিআরটি ওয়ার্ল্ড।

গুতেরেস সাংবাদিকদের বলেন, আফগান অর্থনীতিতে অবশ্যই দ্রুত তারল্য প্রবেশ করাতে ও মন্দা এড়াতে হবে। তা না হলে লাখ লাখ মানুষকে দারিদ্র্য, ক্ষুধা ও নিঃস্বের দিকে পরিচালিত করবে। আফগানিস্তানের অর্থনীতির পতন এড়ানোর কার্যক্রমে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য ওই আহ্বান জানান তিনি। গুতেরেস বলেছেন, নিম্নতম তাপমাত্রা এবং স্থগিত সম্পদ- দুটোই আফগানদের জন্য একটি প্রাণঘাতী সংমিশ্রণ।

afgan childঅপুষ্টিতে ভুগছে আফগান শিশুরা

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানে ২০ বছরের যুদ্ধ শেষ করার সাথে সাথে তালেবানরা আগস্টের মাঝামাঝি ক্ষমতা দখল করে। এর পর থেকে দেশটি নিজেকে একটি মানবিক বিপর্যয়ের দ্বারপ্রান্তে খুঁজে পেয়েছে। বিলিয়ন ডলারের সম্পদ ওয়াশিংটন স্থগিত করেছে এবং সাহায্য সরবরাহ ব্যাপকভাবে ব্যাহত হয়েছে। ফলে আফগানিস্তানের অর্ধেকেরও বেশি জনসংখ্যা এখন দুর্ভিক্ষের মুখে।

মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলছে, ২০২২ সালে ৪৭ লাখ মানুষ তীব্র অপুষ্টিতে ভুগবে। এর মধ্যে শিশু রয়েছে ১১ লাখ, যারা গুরুতর অপুষ্টিতে ভুগবে। গত মাসে আন্তর্জাতিক দাতারা আফগানিস্তানে ২ কোটি ৮০ লাখ ডলার সহায়তা দিতে সম্মত হয়েছে। এই শীতে অর্ধেকেরও বেশি জনসংখ্যা তীব্র খাদ্য সংকটের মুখে পড়তে যাচ্ছে।

গুতেরেস বলছেন, আমি আশা করি আফগানিস্তান পুনর্গঠন ট্রাস্ট ফান্ড (এআরটিএফ) থেকে অবশিষ্ট ১.২ বিলিয়ন ডলার দেশটির জনগণকে শীত থেকে বাঁচতে সহায়তা করবে।

ওয়াশিংটন আফগান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রায় ৯.৫ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ জব্দ করেছে। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) এবং বিশ্বব্যাংকও আফগানিস্তানে কার্যক্রম স্থগিত করেছে ও সহায়তা আটকে রেখেছে। এর পাশাপাশি গত আগস্টে আইএমএফের জারি করা নতুন রিজার্ভে আফগান সহায়তার জন্য ৩৪০ মিলিয়ন ডলারের প্রস্তাব ছিল, সেটাও আটকে দেয়া হয়েছে।