advertisement
আপনি পড়ছেন

ইসলামিক আমিরাত আফগানিস্তানে কোনো বিদেশি সহায়তা ছাড়াই বাজেট দিয়েছে তালেবান। দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় আসার পর এটিই তাদের প্রথম বাজেট। গত বুধবার অনুমোদন দেয়া এই বাজেটে কোনো ধরনের বিদেশি সহায়তার উল্লেখ নেই। খবর এএফপির।

taliban leader 2বাজেট ঘোষণার পর বেরিয়ে যাচ্ছেন তালেবান নেতৃবৃন্দ

তালেবান সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আহমদ ওয়ালি হকমল গত বৃহস্পতিবার বলেছেন, আমরা বিদেশি সাহায্যের ওপর নির্ভরতামুক্ত একটি বাজেট তৈরি করেছি। গত দুই দশকে প্রথমবারের মতো এমন বাজেট ঘোষিত হলো। এটি আমাদের জন্য বড় অর্জন। মূলত ট্যাক্স, বাণিজ্য এবং খনির রাজস্বসহ নিজস্ব সংস্থান দ্বারা তালেবান কোষাগারের অর্থায়ন করা হয়।

আফগানিস্তানের অর্থ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ২০২২ সালের প্রথম তিন মাসের জন্য দেয়া এই বাজেটের আকার ৫ হাজার ৩৯০ কোটি আফগান মুদ্রা। এর প্রায় পুরোটাই খরচ হবে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে অর্থায়নের জন্য। ৪৭০ কোটি আফগানি ব্যয় করা হবে পরিবহন অবকাঠামোসহ উন্নয়ন প্রকল্পে। হকমল বলেন, এ অর্থের পরিমাণ খুবই সামান্য। কিন্তু আমরা আপাতত এতটুকুই অর্থ বরাদ্দ করতে পারছি।

taliban1রাস্তায় তালেবানের টহল

তিনি আরো জানান, সরকারি কর্মচারীদের অনেকে কয়েক মাস ধরে বেতন পাননি। তারা এ মাসের শেষ থেকে জানুয়ারির শেষে বেতন পেতে শুরু করবেন। যেসব নারী কর্মীদের কাজে যোগ দিতে আপাতত নিষেধ করা হয়েছিল, তাদেরও বেতন দেওয়া হবে। হকমল বলেন, নারী কর্মীদের বরখাস্ত করা হয়নি।

২০২১ সালের ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের পতনের মধ্য দিয়ে দেশটির ক্ষমতায় আসে তালেবান। এর পরের মাসে অন্তর্বর্তী সরকার গঠনের ঘোষণা দেয় তারা। আগামী মার্চে তালেবান তাদের প্রথম বার্ষিক বাজেট ঘোষণা করতে পারে।

দীর্ঘদিন ধরে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের ৪০ শতাংশ জিডিপিই আসে আন্তর্জাতিক সাহায্য থেকে। সাবেক মার্কিন-সমর্থিত সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকাকালীন বাজেটের ৮০ শতাংশই ছিল আন্তর্জাতিক সহায়তা। কিন্তু গত বছরের আগস্টে তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর পশ্চিমা দেশগুলো বিলিয়ন ডলারের সাহায্য বন্ধ করে দেয়।