advertisement
আপনি পড়ছেন

রাশিয়া-ইউক্রেন উত্তেজনায় মার্কিন সেনাদের উচ্চ সতর্কতা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ পেন্টাগন বলেছে, ইউক্রেন ইস্যুতে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যে প্রায় ৮ হাজার ৫০০ সেনাকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। যেকোনো সময় মোতায়েন করার জন্য উচ্চ সতর্কতায় রয়েছে তারা। খবর বিবিসি।

us troops on high alertইউক্রেন সংকট: সাড়ে ৮ হাজার মার্কিন সেনা প্রস্তুত

খবরে বলা হচ্ছে, ইউক্রেন ঘিরে এক লাখ সেনা মোতায়েন সত্ত্বেও রাশিয়া ইউক্রেনের বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপের পরিকল্পনা অস্বীকার করে আসছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেন সোমবার ইউরোপীয় মিত্রদের সাথে একটি ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নেন। কারণ পশ্চিমা শক্তিগুলো রাশিয়ার আগ্রাসনের বিরুদ্ধে একটি সাধারণ কৌশলের লক্ষ্য নিয়েছিল।

পেন্টাগন জানিয়েছে, সেনা মোতায়েনের বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। পেন্টাগনের প্রেস সেক্রেটারি জন কিরবি বলেছেন, সেনা মোতায়েন তখনই করা হবে, যখন ন্যাটো সামরিক জোট ‌দ্রুত প্রতিক্রিয়া জানাবে এবং বাহিনী মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নেবে। অথবা রাশিয়া যদি সরাসরি ইউক্রেনে আক্রমণ করে বসে। তা না হলে ইউক্রেনে সেনা মোতায়েন করার কোনো পরিকল্পনা যুক্তরাষ্ট্রের নেই।

biden video call european alliesইউরোপীয় মিত্রদের সঙ্গে বাইডেনের ভিডিও কল

ডেনমার্ক, স্পেন, ফ্রান্স এবং নেদারল্যান্ডসসহ কিছু ন্যাটো সদস্য ইতোমধ্যে এই অঞ্চলে প্রতিরক্ষা জোরদার করার জন্য পূর্ব ইউরোপে যুদ্ধবিমান এবং যুদ্ধজাহাজ পাঠানোর পরিকল্পনা বা বিবেচনা করছে। চলতি সপ্তাহে ফ্রন্টলাইন ডিফেন্ডারদের জন্য গোলাবারুদসহ প্রায় ৯০ টন অস্ত্র ও অস্ত্রসামগ্রী ইউক্রেনে পৌঁছেছে।

বাইডেনের পাশাপাশি সোমবারের ভিডিও কলে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, ফরাসি রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ, জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ স্কোলজ, ইতালির প্রধানমন্ত্রী মারিও ড্রাঘি, পোলিশ প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেজ ডুদা এবং ন্যাটো প্রধান জেনস স্টলটেনবার্গ অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। ইইউ নেতা উরসুলা ভন ডের লেইন এবং চার্লস মিশেলও অনলাইনে অংশ নেন।

বাইডেন পরে বলেছেন, খুব ভাল বৈঠক হয়েছে। সমস্ত ইউরোপীয় নেতাদের সাথে সম্পূর্ণ ঐকমত্য হয়েছে। ডাউনিং স্ট্রিটের একজন মুখপাত্র বলেছেন, নেতারা ক্রমবর্ধমান রাশিয়ান শত্রুতার মুখে আন্তর্জাতিক ঐক্যের গুরুত্বের বিষয়ে একমত হয়েছেন।

নেতারা একমত হয়েছেন যে, ইউক্রেনে আরও রাশিয়ান অনুপ্রবেশ ঘটলে মিত্রদের অবশ্যই নিষেধাজ্ঞার একটি অভূতপূর্ব প্যাকেজসহ দ্রুত প্রতিশোধমূলক প্রতিক্রিয়া তৈরি করতে হবে। এর আগে সোমবার জনসন সতর্ক করেন, গোয়েন্দারা পরামর্শ দিয়েছে, রাশিয়া ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভে বজ্রপাতের মতো আকস্মিক অভিযানের পরিকল্পনা করছে।

বরিস বলেন, গোয়েন্দা তথ্য খুব স্পষ্ট যে ইউক্রেনের সীমান্তে ৬০টি রাশিয়ান সেনাদল রয়েছে। সবাই দেখতে পাবে একটি বজ্রপাতের যুদ্ধের পরিকল্পনা, যা কিয়েভকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যেতে পারে। রাশিয়াকে বলব, ইউক্রেনে হামলা একটি বিপর্যয়মূলক পদক্ষেপ হবে।

ক্রেমলিন বলেছে, তারা ন্যাটোকে একটি নিরাপত্তা হুমকি হিসেবে দেখেছে এবং আইনি গ্যারান্টি দাবি করছে যে, জোটটি প্রতিবেশী ইউক্রেনসহ পূর্বে আরও প্রসারিত হবে না। তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বলছে, সমস্যাটি রুশ আগ্রাসন, ন্যাটো সম্প্রসারণ নয়।