advertisement
আপনি পড়ছেন

তুরস্ক থেকে ৭৫০ টন জরুরি পণ্য নিয়ে দুটি মানবিক ট্রেন আফগানিস্তানের উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছে। ১১টি মানবিক সংস্থার সমন্বয়ে এতে আফগানিস্তানের দুঃস্থ নাগরিকদের সহায়তার জন্য বিভিন্ন ধরনের সামগ্রী পাঠানো হয়েছে। আঙ্কারা থেকে এই ট্রেন কাবুল পৌঁছতে দুই সপ্তাহের বেশি সময় লেগে যেতে পারে। তুর্কিভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আনাদোলু নিউজ এজেন্সির প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়।

turkey trainতুরস্ক থেকে যাত্রা শুরু করেছে মানবিক সহায়তার ট্রেন

তুরস্কের পরিবহন ও অবকাঠামো মন্ত্রী আদিল কারাইসমাইলোগ্লু জানিয়েছেন, রাজ্যের দুর্যোগ ও জরুরি ব্যবস্থাপনা প্রেসিডেন্সির (এএফএডি) অধীনে এতে ১১টি মানবিক সংস্থা সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছে। এই মানবিক সহায়তা ৪ হাজার ১৬৮ কিলোমিটার অতিক্রম করে আফগানিস্তানে পৌঁছাবে।

তিনি বলেন, ৪৭টি ওয়াগনসহ দুটি ট্রেনে রয়েছে খাদ্য, পোশাক, কম্বল এবং স্বাস্থ্যবিধি সামগ্রীসহ প্রায় ৭৫০ টন দাতব্য সামগ্রী। বহরটি ইরান ও তুর্কমেনিস্তানের মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানে পৌঁছাবে। গত ডিসেম্বরে ইসলামাবাদ-তেহরান-ইস্তানবুল কার্গো ট্রেনের সূচনার উল্লেখ করে তিনি আশা প্রকাশ করেন, মানবিক এই ট্রেন ১৬ দিনে তার যাত্রা পূরণ করবে।

afghan childবৈশ্বিক চাপের কারণে আফগানিস্তানে সঙ্কট বেড়েছে

আঙ্কারায় ট্রেনের ফ্ল্যাগ অফ অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে গিয়ে তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলেমান সোয়লু বলেন, খারাপ আবহাওয়ার কারণে আফগানিস্তানের প্রায় এক কোটি ৩০ লাখ শিশু চরম বিপর্যস্ত অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে। তুরস্ক সবসময় আফগানিস্তানের জনগণের পাশে থাকবে উল্লেখ করে তিনি দাবি করেন, গত চার বছর ধরে তুরস্ক বিশ্বে সবচেয়ে বেশি সাহায্য-সহায়তা দিয়ে আসছে।

এদিকে, সাহায্য সংস্থাগুলো আফগানিস্তানের দুর্দশাকে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল মানবিক সংকট হিসেবে বর্ণনা করেছে। জাতিসংঘের মানবিক সমন্বয় কার্যালয়, ওসিএইসএ-এর মতে, আফগানিস্তানের অর্ধেক জনসংখ্যা এখন তীব্র ক্ষুধার সম্মুখীন, ৯০ লাখের বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত এবং লাখ লাখ শিশু স্কুলের বাইরে রয়েছে।

এর আগে জাতিসংঘ ও এর অংশীদাররা ২০২২ সালে আফগানিস্তানে একটি মানবিক বিপর্যয় এড়াতে ৪৪০ কোটি ডলারের তহবিলের আবেদন জানায়। লাখ লাখ আফগান মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে রয়েছে উল্লেখ করে জাতিসংঘের প্রধান আন্তোনিও গুতেরেস আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে আফগানিস্তানের জমাকৃত সম্পদ ছেড়ে দিতে এবং এর ব্যাংকিং ব্যবস্থা চালুর আহ্বান জানিয়েছেন।