advertisement
আপনি পড়ছেন

জাতীয় নিরাপত্তা ও গুপ্তচরবৃত্তির শঙ্কায় একের পর এক চীনা প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আসছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এ তালিকায় সবশেষ যুক্ত হলো দেশটির চায়না ইউনিকম। ফলে ৬০ দিনের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে টেলিকম পরিষেবা সরবরাহ বন্ধ করতে হবে প্রতিষ্ঠানটিকে।

china unicomচায়না ইউনিকম, ফাইল ছবি

চীনা প্রতিষ্ঠানটির মার্কিন ইউনিটের কার্যক্রম অনুমোদন বাতিল করতে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির ফেডারেল কমিউনিকেশনস কমিশন, এফসিসি। সংস্থাটির চেয়ারম্যান জেসিকা রোজেনওরেল বলেন, চীনা টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠানগুলো ওয়াশিংটনের টেলিযোগাযোগ নেটওয়ার্ক নিরাপত্তার জন্য মূর্তিমান হুমকি হয়ে উঠছে দিনকে দিন।

এর আগ গত বছরের অক্টোবরে চায়না ইউনিকমের লাইসেন্স বাতিল করেছিল আরেকটি মার্কিন প্রতিষ্ঠান। এ নিয়ে ওয়াশিংটনে থাকা চীনা দূতাবাস তাৎক্ষণিক কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি, বেইজিং থেকেও কিছু বলা হয়নি এখনো।

us vs china 1চীন বনাম যুক্তরাষ্ট্র

বিবিসিকে চায়না ইউনিকম বলেছে, গত দুই দশক ধরে মার্কিন আইন ও প্রবিধান মেনে গ্রাহকদের নির্ভরযোগ্যভাবে সেবা ও সমাধান দিয়ে এসেছে তারা। পরিস্থিতির উন্নয়নের বিষয়টি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সময় ডজনে ডজনে চীনা প্রতিষ্ঠানের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। এটিকে বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে ওয়াশিংটনের ‘বাণিজ্য যুদ্ধ’ হিসেবে আখ্যায়িত করে পশ্চিমা গণমাধ্যমগুলো। এর পাল্টা ব্যবস্থা নিয়েছে চীনও।

তবে বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও চীনকে চাপে রাখতে একই পথে হাঁটছেন। বাণিজ্য যুদ্ধের তালিকায় নতুন করে যুক্ত হওয়া ওয়াশিংটনের সবশেষ এই নিষেধাজ্ঞা সেই কথাই বলছে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।