advertisement
আপনি পড়ছেন

নিজ দল ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির একমাত্র এমপি হিসেবে শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের কয়েকদিনের মধ্যে পার্লামেন্টে প্রায় সব দলের সমর্থন নিশ্চিত করলেন রনিল বিক্রমাসিংহে। একের পর এক চিঠি চালাচালি ও বৈঠকের পর অবশেষে শ্রীলঙ্কার সবকটি গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক দল তার সরকারকে সমর্থনের আশ্বাস দিয়েছে।

ranil gotabaya face to face গত বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নেন রনিল বিক্রমাসিংহে (বামে)

সোমবার সকালে শ্রীলঙ্কা ফ্রিডম পার্টির (এসএলএফপি) সাধারণ সম্পাদক দয়াসিরি জয়াসেকারার নেতৃত্বে দলটির তিন সদস্যের এক প্রতিনিধি দল রনিল বিক্রমাসিংহের আমন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। দীর্ঘ বৈঠক শেষে বেরিয়ে এসএলএফপি নেতা দয়াসিরি জয়াসেকারা, রঞ্জিথ সিয়ামবালাপিটিয়া ও দুশ্যন্ত মিথ্রপালা বলেছেন, তাদের দল সরকারের বাইরে থেকে রনিল বিক্রমাসিংহেকে সবরকম সমর্থন দেবে।

এসএলএফপি প্রতিনিধিরা বিদায় নেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে যান সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসের সরকারের উপর থেকে গত মাসে সমর্থন প্রত্যাহারকারী ১০ দলের প্রতিনিধি উদায়া গমনপিলা এমপি। বৈঠক থেকে বেরিয়ে তিনি বলেছেন, ১০ দল দেশ পুনর্গঠনে রনিল বিক্রমাসিংহেকে সমর্থন দিতে রাজি হয়েছে। তবে মন্ত্রিসভার কোনো দপ্তর তারা নেবেন না।

এদিকে বিকেলে পার্লামেন্টে সবচেয়ে বড় বিরোধী দল এসজেবির নেতা সাজিথ প্রেমাদাসা বলেছেন, এসজেবির পার্লামেন্টারি গ্রুপ প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের নেতৃত্বে নতুন সরকারকে অর্থনীতির জন্য কল্যাণকর ইস্যুগুলোতে সমর্থন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একইসঙ্গে এসজেবি দলীয় এমপি রোহিনী বিজরত্নে কবিরত্নেকে ডেপুটি স্পিকার পদে মনোনয়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সরকারকে সমর্থন দিলেও এসজেবি কোনো মন্ত্রণালয় নেবে না বলে তিনি জানান।

এর আগে শনিবার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে পার্লামেন্টে দ্বিতীয় বৃহত্তম দল হিসেবে এসজেবিকে ডেপুটি স্পিকার পদে প্রার্থী মনোনয়নের আহ্বান জানান। একইসঙ্গে তিনি পরামর্শ দেন সম্ভব হলে দলটি যেন কোনো নারীকে এ পদে মনোনয়ন দেয়।

এর আগে সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসের দল এসএলপিপি রনিল বিক্রমাসিংহেকে সরকার গঠনে সমর্থন দেওয়ার ঘোষণা দেয়। পাশাপাশি কয়েকজন তামিল ও স্বতন্ত্র এমপিও তাকে সমর্থনের ঘোষণা দেন।