advertisement
আপনি পড়ছেন

শ্রীলঙ্কার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে বুধবার পার্লামেন্টে উপস্থিত ছিলেন। পদত্যাগের পর এই প্রথম তার দেখা মিলল। জনবিক্ষোভের মুখে পদত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছিলেন তিনি। অর্থনৈতিক সংকটের দরুন বিক্ষোভের মুখে পদত্যাগের পর উচ্চ নিরাপত্তায় নৌবাহিনীর শিবিরে আশ্রয়ে ছিলেন। এ দিন তার ছেলে নমাল রাজাপাকসেও সংসদে উপস্থিত হন। এনডিটিভি।

mahinda rajapaksa 2মাহিন্দা রাজাপাকসে

৭৬ বছর বয়সী মাহিন্দা রাজাপাকসে তিনবার দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। গত সপ্তাহে তার বাসভবনে আগুন লাগিয়ে দেয় বিক্ষুব্ধ জনতা। এরপর স্ত্রী এবং পরিবারের সাথে সরকারি বাসভবন টেম্পল ট্রি থেকে পালিয়ে যান। আশ্রয় নেন ত্রিনকোমালির নৌ ঘাঁটিতে।

মাহিন্দার সমর্থকরা সরকার বিরোধী বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলা চালালে এর কয়েক ঘণ্টা পর কর্তৃপক্ষ দেশব্যাপী কারফিউ জারি করে এবং রাজধানীতে সেনা মোতায়েনের অনুরোধ জানায়।

বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলা রাজাপাকসেপন্থী রাজনীতিবিদদের বিরুদ্ধে ব্যাপক সহিংসতার সূত্রপাত করে। ২০০ জনেরও বেশি লোক আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়, তাদের মধ্যে মারা যায় কমপক্ষে নয় জন।

মাহিন্দা রাজাপাকসে এখনও এমপি বদে বহাল রয়েছেন। সর্বশেষ তাকে সংসদে দেখা গিয়েছিল গত ৯ মে। নতুন সরকার গঠনের পর বুধবার তাকে আবার সংসদে দেখা গেলো। তার ছেলে সাবেক মন্ত্রিপরিষদ মন্ত্রী নমাল রাজাপাকসেও সংসদ অধিবেশনে যোগ দেন। এর আগে মঙ্গলবার যখন প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাকসে তার প্রতি অসন্তোষ সংক্রান্ত প্রস্তাবের ভোটাভোটিতে যান, তখন হাজির ছিলেন না মাহিন্দা।

শ্রীলঙ্কায় গত মাসজুড়ে অচলাবস্থা বিরাজ করছে। মূলত খাদ্য, অর্থ ও জ্বালানি নিয়েই দেখা দেয় অসন্তোষ। জনগণ মাহিন্দা সরকারের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে আসে। সরকারি মন্ত্রী এমপিদের বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয়। বাধ্য হয়ে পদত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে।