advertisement
আপনি পড়ছেন

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ইরানের তেল বিক্রি আগের তুলনায় অনেক বেড়েছে। দামও ভালো পাওয়া যাচ্ছে। ইরানের পেট্রোলিয়ামমন্ত্রী জাওয়াদ ওউজি এসব তথ্য জানিয়েছেন। ডলার এড়িয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় ও কৃষিপণ্যের বিনিময়ে ইরান তেল রপ্তানি করছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

javad owjiইরানের পেট্রোলিয়ামমন্ত্রী জাওয়াদ ওউজি

তেল ইরানের প্রধান বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের খাত। তবে বিগত মার্কিন সরকারের আরোপিত কঠোর নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের তেল রপ্তানি ব্যাপকভাবে কমে যায়। ইরান নিজেদের ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে নতুন কৌশলের আশ্রয় নেয়। মার্কিন নিষেধাজ্ঞাকে পাশ কাটিয়ে তেল রপ্তানির সুযোগ তৈরি করে।

তেহরানের এ কৌশলটি বেশ কাজে দিয়েছে। পাশাপাশি ডলার এড়াতে ল্যাতিন আমেরিকার বিভিন্ন দেশের সাথে নিত্যপ্রয়োজনীয় ও কৃষিপণ্যের বিনিময়ে তেল রপ্তানির চুক্তি করেছে দেশটি। এতে ওই দেশগুলোও বৈদেশিক মুদ্রা হিসেবে ডলার সংগ্রহ ও ব্যয়ের হাত থেকে রক্ষা পায়। এ কৌশলে উভয় পক্ষই লাভবান হওয়ায় তেল রপ্তানি বেড়েছে।

iran oil export terminalইরানের একটি তেল টার্মিনাল

ওউজি গতকাল আরো জানান, রাশিয়ার জ্বালানি খাতের ওপর সাম্প্রতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর বাজার পরিস্থিতি কিছুটা পাল্টেছে। সেক্ষেত্রেও ইরান আগের ক্রেতাদের ধরে রেখে নতুন ক্রেতা খোঁজার কাজ করে যাচ্ছে।

ইরানের পেট্রোলিয়ামমন্ত্রী সম্প্রতি ল্যাতিন আমেরিকার বেশ কয়েকটি দেশে সফরে যান। ১০ দিনব্যাপী ওই সফর প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ সফরে বেশ কয়েকটি দেশে তেল রপ্তানি বৃদ্ধির চুক্তি হয়েছে। এসব চুক্তি অনুযায়ী নগদ অর্থ ছাড়াও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য ও কৃষিপণ্যের বিনিময়ে ইরান থেকে তেল নেবে এসব দেশ।