advertisement
আপনি পড়ছেন

রাশিয়ার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ দুমা অবন্ধুসুলভ দেশের যে তালিকা প্রকাশ করেছে, তাতে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মূলত রাশিয়ার ওপর দেশগুলোর আরোপিত নিষেধাজ্ঞার সংখ্যার ভিত্তিতেই এ তালিকায় শীর্ষস্থান দখল করেছে জো বাইডেনের দেশ। যুক্তরাষ্ট্র এ পর্যন্ত রাশিয়ার বিরুদ্ধে ১৯৮৩টি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে বলে জানা গেছে। খবর ইকোনোমিক টাইমস।

russia usa conflictরাশিয়ার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক কখনোই ভালো ছিল না

খবরে বলা হয়, রুশ পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ দুমার চেয়ারম্যানের ভিয়েচেস্লাভ ভলোদিন রাশিয়ার অবন্ধুসুলভ দেশের তালিকা প্রকাশ করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের পরই এ তালিকায় শীর্ষে রয়েছে যথাক্রমে কানাডা, সুইজারল্যান্ড, ব্রিটেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, অস্ট্রেলিয়া ও জাপান।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়া এক পোস্টে ভিয়েচেস্লাভ ভলোদিন দাবি করেন, এসব রাষ্ট্র ও সংস্থা রাশিয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার কারণে বিশ্বব্যাপী জ্বালানি ও খাদ্যপণ্যসহ সব পণ্যের দাম আকাশচুম্বী হয়ে গেছে। এসব দেশই মূলত বিশ্বের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ সংকটের জন্য দায়ী।

duma chairmanদুমার চেয়ারম্যানের ভিয়েচেস্লাভ ভলোদিন

তিনি বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার দেশে পণ্যমূল্য বেড়ে যাওয়ার জন্য রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে দায়ী করেছেন। কিন্তু জনমতে দেখা গেছে, আমেরিকানরা তার এ বক্তব্য খুব একটা গ্রহণ করতে রাজি নয়। বরং তারা মনে করে, মূল্যস্ফীতি মোকাবেলায় তাদের সরকারের আরো অনেক কিছু করার ছিল।

উল্লেখ্য, ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার আক্রমণের আগেই ইউরোপে বিদ্যুতের দাম রেকর্ড পর্যায়ে পৌঁছেছিল। তখন মস্কো জানিয়েছিল, ইউরোপ রাশিয়ার সাথে দীর্ঘমেয়াদি সরবরাহ চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে এই ঊর্ধ্বগতিকে উপশম করতে পারে।

দুই পক্ষের মধ্যকার সম্পর্ক এখন এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে বিদ্যমান চুক্তিগুলো থেকেই সরে যেতে চাইছে ইউরোপের দেশগুলো। এমতাবস্থায় বিদ্যুৎসহ সব কিছুর দাম আগের তুলনায় অনেক বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।