advertisement
আপনি পড়ছেন

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে তিনি বৈঠক করতে প্রস্তুত। কিম জং উন আলোচনার জন্য ‘সিরিয়াস’ হলেই বৈঠকটি হতে পারে। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইয়ুন সুক-ইয়লের সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বাইডেন এ কথা বলেন।

kim jong un lab tlsdযুক্তরাষ্ট্র কোভিড টিকা সরবরাহের প্রস্তাব দিলেও উত্তর কোরিয়া সাড়া দেয়নি বলে সংবাদ সম্মেলনে জো বাইডেন জানান

জো বাইডেন বলেন, উত্তর কোরীয় নেতা কতটা সিরিয়াস ও আন্তরিক তার উপর সবকিছু নির্ভর করে। তিনি যদি আলোচনার জন্য সিরিয়াস হন তাহলে আমি বৈঠকের জন্য প্রস্তুত আছি। উত্তর কোরিয়ায় সম্প্রতি কোভিড-১৯ সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়লে যুক্তরাষ্ট্র দেশটিকে টিকা সরবরাহের প্রস্তাব দিয়ে সাড়া পায়নি বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, আমরা টিকা সরবরাহের প্রস্তাব দিয়েছি। কেবল উত্তর কোরিয়া নয়, চীনকেও প্রস্তাব দিয়েছি। আমরা অবিলম্বে টিকা সরবরাহ করতে প্রস্তুত আছি। আমরা কোনো জবাব পাইনি।

যৌথ সংবাদ সম্মেলনের এক বড় অংশজুড়ে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার দুই প্রেসিডেন্ট উত্তর কোরিয়া ইস্যুতেই কথা বলেন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, প্রেসিডেন্ট ইয়ুন ও আমি আমাদের ঘনিষ্ট সহযোগিতা জোরদারে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছি এবং দুই দেশের নিবারক প্রস্তুতি আরও দৃঢ়করণের মাধ্যমে গণপ্রজাতন্ত্রী কোরিয়ার (উত্তর কোরিয়ার সরকারি নাম) হুমকিসহ আঞ্চলিক নিরাপত্তার চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবেলায় যৌথভাবে কাজ করতে সম্মত হয়েছি।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ইয়ুন সুক-ইয়ল বলেন, সংলাপের পথ খোলা রয়েছে। উত্তর কোরিয়া যদি পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণে উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নেয়, আমরা আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতায় দেশটির অর্থনীতি ও উত্তর কোরীয় জনগণের জীবনমান উন্নয়নে উচ্চাভিলাষী পরিকল্পনা প্রণয়ন করব।

জো বাইডেনের প্রস্তাবিত ইন্দো-প্যাসিফিক ইকোনমিক ফ্রেমওয়ার্কে (আইপিইএফ) দক্ষিণ কোরিয়া যোগ দিবে বলে প্রেসিডেন্ট ইয়ুন ঘোষণা করেন। ডিজিটাল ইকোনমি, পরিচ্ছন্ন জ্বালানি ও অবকাঠামোতে বিনিয়োগসহ নানা ক্ষেত্রে নতুন নিয়মনীতি প্রবর্তনের ঘোষণা দিয়ে নতুন এ অর্থনৈতিক রূপরেখা প্রস্তাব করেছেন জো বাইডেন।

বৈশ্বিক বাণিজ্যের সরবরাহ চেইন জোরদার আইপিইএফের লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট, যদিও চীনের আশঙ্কা হলো বৈশ্বিক সরবরাহ চেইন থেকে চীনকে বিচ্ছিন্ন করতে যুক্তরাষ্ট্র এ উদ্যোগ নিয়েছে।