advertisement
আপনি পড়ছেন

অস্ট্রেলিয়ার নতুন নেতা জলবায়ু নীতিতে বড় পরিবর্তন আনতে যাচ্ছেন। এর মাধ্যমে তিনি দেশকে নতুন গন্তব্যে নিয়ে যাওয়ার অঙ্গীকার করেছেন। স্কট মরিসন জোটের বিরোধী পক্ষ মধ্য-বাম লেবার পার্টির জোট গতকাল শনিবারের নির্বাচনে জয়ী হয়েছে। জোটের নেতা অ্যান্টনি অ্যালবানিজ বলেছেন, অস্ট্রেলিয়াকে নবায়নযোগ্য জ্বালানির পরাশক্তি হিসেবে গড়ে তোলা হবে। বিবিসি।

anthony albanese twsdঅ্যান্টনি অ্যালবানিজ

আগামীকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন অ্যালবানিজ। তবে তার দল সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে কি না, তা স্পষ্ট নয়। তিন বছরের রেকর্ড গড়া দাবানল এবং ভয়াবহ বন্যার ঘটনার পর ভোটারদের মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ক্ষতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ ছিল।

বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী লিবারেল-ন্যাশনাল কোয়ালিশনের নেতা স্কট মরিসন নির্বাচনের আগে জলবায়ু সংকটের বিষয়টি স্বীকার করেন এবং তিনি অস্ট্রেলীয় জনগণের রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন। ভোট গণনা এখনও চলছে। তবে সংসদের ১৫১ সদস্যের নিম্নকক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনের জন্য লেবার পার্টি ৭৬টি আসন পাবে কি না, তা স্পষ্ট নয়।

scott morrison newস্কট মরিসন

চূড়ান্ত ফলাফল কয়েকদিনের জন্য জানা যাবে না। কারণ নির্বাচনী কর্মকর্তারা সবেমাত্র প্রায় তিন মিলিয়ন পোস্টাল ভোট গণনা শুরু করেছেন। যদি নির্বাচনের ফল একটি ঝুলন্ত সংসদ তৈরি করে, তাহলে যারা জলবায়ু নীতি পরিবর্তনের পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন, তাদের জন্য কঠিন সময় আসতে পারে।

নির্বাচনে জয়লাভের পরপরই বিবিসির সঙ্গে কথা বলেন অ্যালবানিজ। ৫৯ বছর বয়সী এই রাজনৈতিক নেতা বলেন, আমাদের কাছে এখন অস্ট্রেলিয়ার জলবায়ু যুদ্ধ শেষ করার সুযোগ রয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ওপর ভালো পদক্ষেপ নিলে ফল পাবে জনগণ, শক্তিশালী হবে অর্থনীতি। এজন্য আমি বিশ্বব্যাপী এই প্রচেষ্টায় যোগ দিতে চাই।

আলবানিজ গত এক দশকের মধ্যে প্রথম ব্যক্তি হিসেবে লেবার পার্টির সরকারের নেতৃত্ব দিতে যাচ্ছেন। তিনি উচ্চাভিলাষী লক্ষ্যমাত্রা গ্রহণ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তিনি কয়লা ব্যবহার বন্ধ কিংবা নতুন কয়লা খনি খোলার ক্ষেত্রে আইনি বাধা দূর করার আহ্বান জানিয়েছেন।