advertisement
আপনি পড়ছেন

রাশিয়াকে কিছু অঞ্চল ছেড়ে দিয়ে সমঝোতার পথ বেছে নেওয়ার পরামর্শ প্রত্যাখ্যান করেছেন ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। যারা এই ধরনের পরামর্শ দিয়েছেন তাদের নিন্দাও করেছেন তিনি। সম্প্রতি পশ্চিমা কিছু বিশেষজ্ঞ জেলেনস্কিকে ওই পরামর্শ দেন। শান্তি চুক্তিতে পৌঁছানোর স্বার্থে তারা ইউক্রেনকে ওই পরামর্শ দিয়েছিলেন। টিআরটি ওয়ার্ন্ড।

ukrainian president volodymyr zelenskyyজেলেনস্কি

জেলেনস্কি বলছেন, যে ‘মহান ভূরাজনীতিবিদরা’ এই পরামর্শ দিচ্ছেন তারা সাধারণ ইউক্রেনীয়দের স্বার্থকে উপেক্ষা করছেন। জাতির উদ্দেশ্যে বুধবার রাতে দেওয়া ভিডিও ভাষণে তিনি আরও বলেন, আমাদের সর্বদা মানুষের কথা ভাবতে হবে এবং মনে রাখতে হবে মূল্যবোধ কেবলই শব্দ নয়।

যারা আত্মসমর্পণের পরামর্শ দিচ্ছেন তাদের হিটলারের সমর্থক হিসেবে উল্লেখ করে জেলেনস্কি বলেন, যারা রাশিয়াকে ইউক্রেনের একটি টুকরোও দেওয়ার জন্য যুক্তি দিয়েছে, তারা মূলত তাদের মতো যারা ১৯৩৮ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় হিটলারকে ভূখণ্ড অর্পণ করেছিল।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে স্বৈরশাসক উল্লেখ করে জেলেনস্কি বলেন, যারা পুতিনের সাথে আমার সাক্ষাতের জন্য তাড়াহুড়ো করছে, তাদের স্বার্থ আর ইউক্রেনের জনগণের স্বার্থ এক নয়।

দ্রুত রকেট লঞ্চার সিস্টেম চায় ইউক্রেন

ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, যুদ্ধে আমাদের অস্ত্র সরঞ্জামের খুবই প্রয়োজন। এই মুহূর্তে সবচেয়ে বেশি দরকার মাল্টিপল রকেট লাঞ্চার সিস্টেম (এমএলআরএস) ও আর্মি সাবস্ট্যান্স অ্যাবিউস প্রোগ্রাম বা এএসএপি যুদ্ধ সরঞ্জাম।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবা ডাভোসে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের বৈঠকের ফাঁকে বলেন, পূর্ব ডনবাস অঞ্চলের পরিস্থিতি ‘অত্যন্ত খারাপ’। এ সহায়তা ইউক্রেনীয় বাহিনীকে রাশিয়ান বাহিনীর কাছ থেকে দক্ষিণ শহর খেরসনের মতো জায়গাগুলো পুনরুদ্ধারে সহায়তা করতে পারে।

তিনি বলেন, যদি আমরা এমএলআরএস না পাই, তাহলে ডনবাসের পরিস্থিতি এখনকার চেয়ে আরও খারাপ হবে।

এর আগে ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বলেছিলেন, ডনবাসে যুদ্ধের পরিস্থিতি ভয়ানক খারাপ। রুশ বাহিনী সেখানে যা ইচ্ছা তাই করছে। শহরগুলো ধ্বংস্তূপে পরিণত হয়েছে।