advertisement
আপনি পড়ছেন

জর্ডানের দক্ষিণাঞ্চলীয় বন্দর নগরী আকাবায় গতকাল সোমবার ক্লোরিন গ্যাস লিক হয়ে কমপক্ষে ১৩ জন নিহত এবং ২৫১ জন আহত হয়েছেন। সরকারি মুখপাত্র ফয়সাল আল-শাবুলের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে আল জাজিরা।

this photo taken from cctv videoগ্যাস বিস্ফোরণের পর দুর্ঘটনাস্থল

জর্ডানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের টুইটার পেজে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, জিবুতিতে রপ্তানি করা ২৫ টন ক্লোরিন গ্যাস ভর্তি একটি ট্যাঙ্ক পরিবহনের সময় পড়ে গেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, ক্রেন দিয়ে একটি ট্রাক থেকে ট্যাঙ্কটি উত্তোলন করা হচ্ছে, তারপর ট্যাঙ্কটি ছুটে দিয়ে একটি জাহাজের ডেকে পড়ে বিস্ফোরিত হয়। পরক্ষণেই পুরো এলাকা হলুদ রঙের গ্যাসে ভরে ওঠে। এ ঘটনায় ১৩ জন নিহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ৯ জন জর্ডানের নাগরিক, বাকি চারজন বিদেশি।

রাষ্ট্রীয় টিভি আল-মামলাকা জানায়, আহতদের ইবা শহরের প্রিন্স হাশেম সামরিক হাসপাতাল, ইসলামিক হাসপাতালসহ তিনটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী বিশার আল-খাসাওনেহ এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাজেন আল-ফারায়া আকাবায় পৌঁছে একটি হাসপাতালে আহতদের দেখতে যান। এ ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি তদন্ত দল গঠন করা হয়েছে।

people outside a hospital after a toxic gas leak from a storage tankআহতদের খবর নিতে হাসপাতালের বাইরে স্বজনদের ভিড়

জর্ডানের মিডিয়ায় এক পরিবেশ কর্মকর্তার বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, গ্যাসের প্রভাব বর্তমানে কমে আসছে এবং এ দুর্ঘটনায় জনস্বাস্থ্যের ওপর ক্ষতির কোনো আশঙ্কা নেই।

জর্ডান চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রির রাসায়নিক শিল্প খাতের প্রধান আহমেদ আল-বাস বলেছেন, তরল ক্লোরিন জীবাণুমুক্ত করার জন্য ব্যবহৃত একটি মৌলিক শিল্প পদার্থ। এ গ্যাসের উচ্চ ঘনত্ব বিষাক্ত, কিন্তু কম ঘনত্ব ক্ষতিকর নয়। দুর্ঘটনার জায়গাটি যেহেতু খোলামেলা, তাই বায়ুমন্ডলে এ গ্যাস ছড়িয়ে পড়ার খুব অল্প সময়ের মধ্যেই ম্লান হয়ে যাবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে লিকেজ ও বিস্ফোরণের প্রথম মুহূর্তগুলোতে গ্যাসটি মারাত্মক। অল্প সময়ের মধ্যেই সেটি ক্ষতিকারক হয়ে ওঠে এবং কোমা সৃষ্টি করে। তারপর যখন এটি বাতাসে অদৃশ্য হয়ে যায় তখন এটি প্রভাবহীন হয়ে যায়।

বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞ ডা. মহম্মদ আল-তারওয়ানেহ বলেছেন, ক্লোরিন গ্যাস অত্যন্ত বিষাক্ত। এই গ্যাসের সংস্পর্শে শ্লেষ্মা ঝিল্লির জ্বালা এবং ত্বকে লাল ফুসকুড়ি হতে পারে। গ্যাস নিঃশ্বাস নেওয়ার ফলে নিউমোনিয়া, খাদ্যনালীতে জ্বালাপোড়া, ডায়রিয়া, মাথাব্যথা, দৃষ্টিশক্তি ও চেতনা হ্রাস পেতে পারে।

স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জামাল ওবেদাত ঘটনাস্থলের আশপাশের লোকজনকে ঘরের ভিতরে থাকার এবং জানালা-দরজা বন্ধ রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। সেখানকার নিকটতম আবাসিক এলাকা ২৫ কিমি দূরে।

আকাবা বন্দর হল জর্ডানের একমাত্র সামুদ্রিক টার্মিনাল এবং দেশটির বেশিরভাগ আমদানি ও রপ্তানির জন্য একটি মূল ট্রানজিট পয়েন্ট। এর সৈকতগুলোও পর্যটকদের প্রধান আকর্ষণস্থল।