advertisement
আপনি পড়ছেন

তারা কী ভুলটা করেছেন? সত্য কথা বলা, সত্যকে তুলে আনা কি অপরাধ? যারাই সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলছেন, তাদের হয় এজেন্সি দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে, নয়তো তাদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। নূপুর-কাণ্ড প্রকাশ্যে আনা জুবায়ের আহমেদকে গ্রেপ্তারের প্রতিক্রিয়ায় এভাবেই সরকারের প্রতি প্রশ্ন রাখেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। খবর হিন্দুস্তান টাইমস।

cm mamataমমতা ব্যানার্জি

গতকাল আসানসোলে এক সভায় জুবায়ের ও তিস্তা শীতলাবাদের গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ জানিয়ে মমতা বলেন, ধর্ম নিয়ে যিনি মন্তব্য করেছেন তাকে আমি ছাড়ব না। বিজেপির লোক ধর্ম নিয়ে কথা বললে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় না। অথচ অন্যরা সেটি ঠেকাতে গেলেই তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়, হেনস্তা করা হয়।

আসানসোলের সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বিভিন্ন ইস্যুকে একের পর এক কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে সরব হন। অগ্নিপথ-অগ্নিবীর থেকে শুরু করে ধর্ম নিয়ে মন্তব্য, বেকারত্ব, নিয়োগসহ নানা ইস্যুতে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে কথা বলেন তিনি।

mohammad jubaer 1জুবায়ের আহমেদ

২০১৮ সালের একটি আপত্তিকর টুইটের পরিপ্রেক্ষিতে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে জুবায়ের আহমেদকে। তার বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা এবং শত্রুতা প্রচারের অভিযোগ আনা হয়েছে। প্রথমে তার ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হলে বিচারক একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। সেটি শেষ হওয়ার পর আবার তাকে চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট, পাতিয়ালা হাউস কোর্টে হাজির হয়। সেখানে বিচারক আবারো তার চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

দিল্লি পুলিশ অভিযোগ করছে, জুবায়ের খ্যাতি পাওয়ার চেষ্টায় বিতর্কিত টুইটগুলো ব্যবহার করেছিলেন। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন বিষয়ে অন্যান্য এফআইআরও নথিভুক্ত করা হয়েছিল।