আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 48 মিনিট আগে

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, কত দিনের মধ্যে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দিতে হবে এই ব্যাপারে সময়ের কোন বাধ্যবাধকতা নেই। প্রধান বিচারপতি নিয়োগ সম্পূর্ণ রাষ্ট্রপতির এখতিয়ারের মধ্যে পড়ে। তিনি যখন চাইবেন, তখনই নিয়োগ দিতে পারেন।

Anisul Haque law minister

বুধবার ঢাকার বারিধারায় প্রত্যয় মেডিকেল ক্লিনিকের উদ্দ্যোগে মাদক প্রতিরোধমূলক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। অনুষ্ঠান শেষে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এসব কথা বলেন আইনমন্ত্রী।

বর্তমানে প্রধান বিচারপতি না থাকা প্রসঙ্গে আইনমন্ত্রী বলেন, এটি কোন সংকট নয়। প্রধান বিচারপতি অনুপস্থিত থাকলে বা পদত্যাগ করলে করণীয় সম্পর্কে সংবিধানে উল্লেখ আছে। প্রধান বিচারপতির পরিবর্তে কে দ্বায়িত্ব পালন করবেন সে বিষয়েও সুস্পষ্টভাবে বলা আছে। সংবিধান অনুযায়ী সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা ছুটিতে গেলে বিচারপতি আবদুল ওয়াহাব মিঞাকে প্রধান বিচারপতির দ্বায়িত্ব দিয়েছিলেন রাষ্ট্রপতি।

Sk Sinhaবিচারপতি এস কে সিনহা

প্রধান বিচারপতির নিয়োগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতি সময় অনুযায়ী প্রধান বিচারপতির নিয়োগ দেবেন। তিনি যখন যথাযথ মনে করবেন তখন নিয়োগ দেবেন। এ বিষয়ে সময়ের বাধ্যবাধকতা নেই। যেহেতু প্রধান বিচারপতি নিয়োগের বিষয়টি একান্তই রাষ্ট্রপতির এখতিয়ারের মধ্যে পড়ে সেহেতু এই বিষয়ে আইন মন্ত্রণালয়ের কিছু বলার নেই।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রধান কনসালট্যান্ট সৈয়দ ইমামুল হোসেন ও প্রত্যয় মেডিকেল ক্লিনিকের চেয়ারম্যান নাজমুল হক।

Add comment

Security code
Refresh