আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 58 মিনিট আগে

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় ‍বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করার জন্য কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫। মঙ্গলবার পুরান ঢাকার বকশীবাজারের আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে স্থাপিত আদালতের বিচারক আখতারুজ্জামান আগামী ২৮ ও ২৯ মার্চ তাকে হাজির করার নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে এ মামলায় ১৩ ও ১৪ মার্চ যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের পরবর্তী দিন ধার্য করেন তিনি।

khaleda zia bnp cort

খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির করতে মঙ্গলবার আখতারুজ্জামানের আদালতে প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট (পিডব্লিউ) এ আবেদন করেন দুদকের প্রসিকিউটর মোশাররফ হোসেন কাজল। অপর দিকে মামলা চার সপ্তাহের জন্য মুলতবি করার আবেদন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী আবদুর রেজকাক খান।

উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আখতারুজ্জামান বলেন, ‘জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়া কারাগারে রয়েছেন। তিনি জামিনে বের হলে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় ১৩ মার্চ ‍যুক্তিতর্ক উপস্থানের দিন আদালতে হাজির হতে হবে। এজন্য আর নতুন করে আদেশ দেয়ার প্রয়োজন নেই। যদি আগে জামিন না পান তবে ১৩ তারিখ এ বিষয়ে আদেশ দেওয়া হবে।’

বিচারক আখতারুজ্জামানের আদালতই গত ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন। এ মামলায় তার ছেলে ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অন্য পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। করা হয় জরিমানাও।

রায় ঘোষণার পরপরই তাকে নাজিম উদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। খালেদার পক্ষে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল এবং জামিন আবেদন করেন আইনজীবীরা। সোমবার হাইকোর্ট খালেদাকে চার মাসের অন্তর্বতীকালীন জামিন দিলে পর দিন মঙ্গলবার তা স্থগিত চেয়ে পৃথক দুটি আবেদন করেন দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা। আবেদন দুটি আজই চেম্বার জজ আদালতে উপস্থাপন করার কথা রয়েছে।

খালেদার বিরুদ্ধে এ ছাড়াও আরও প্রায় চল্লিশটি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। ফলে এখনই তার মুক্তি নিয়ে এক ধরনের অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে খালেদার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘খালেদা জিয়াকে চার মাসের অন্তর্বতী জামিন দিয়েছেন উচ্চ আদালত। নতুন করে কোনো মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো না হলে মুক্তি পাবেন তিনি।’

Add comment

Security code
Refresh