আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 26 মিনিট আগে

গত রোববার বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে সংবাদ সম্মেলনে অভিভাবকরা দাবি করেন, তাদের সন্তানদের পুলিশ আটক করেছে কিন্তু আদালতে তুলছে না। পুলিশের কাছ থেকে গ্রেপ্তার বা আটকের তথ্যও পাওয়া যাচ্ছে না। কিন্তু সংবাদ সম্মেলনের একদিন পরই রাজধানীর তেজগাঁও সেই ১২ শিক্ষার্থীকে দুটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

12 student arrest 1

তবে পরিবারের সদস্যরা দাবি, গত বুধবার রাজধানীর মহাখালী ও তেজগাঁও এলাকা থেকে ১২ শিক্ষার্থীসহ বেশ কয়েকজনকে আটক করে পুলিশ। পরে ১২ জনকে রেখে অন্যদের ছেড়ে দেয়া হয়। অন্যদিকে পুলিশ বলছে, ছাত্রদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে রোববার সন্ধ্যায়।

সম্প্রতি দেশব্যাপী নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তবে অধিকাংশকে ঈদের আগেই জামিনও দেয়া হয়। তবে এই ঘটনার পর গত সপ্তাহে এই ১২ জনকে গোয়েন্দা পুলিশ আটক করে বলে রোববার সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করেন অভিভাবকরা।

গ্রেপ্তারকৃতরা টেক্সটাইল ইউনিভার্সিটি, তিতুমীর কলেজ, সরকারি সাদাত কলেজসহ ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী। তারা হলেন, তারেক আজিজ (১৯), মো. তারেক (১৮), মো. মোজাহিদুল ইসলাম (২১), জাহাঙ্গীর আলম (২২), মো. আল আমীন (১৯), মো. বোরহান উদ্দিন (১৮), মো. জহিরুল ইসলাম (১৯), ইফতেখার আলম (২১), মো. মাহফুজ (১৯), মো. মেহেদী হাসান রাজিব (১৯), মো. রায়হানুল আবেদিন (২২) ও মো. সাইফুল্লাহ (২৪)।

ঢাকা মহানগর উত্তরের উপ-কমিশনার মো. মশিউর রহমান জানান, রোববার সন্ধ্যায় এই শিক্ষার্থীদের তেজকুনীপাড়ার একটি ভবনের নিচতলায় গোপন বৈঠকের সময় আটক করা হয়।

12 student arrest

জানা গেছে, পলিটেকনিকের ছাত্র তারেক আজিজের বিরুদ্ধে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় পুলিশ বাদী হয়ে তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করেছে। অন্য ১১ জনসহ আজিজের বিরুদ্ধে মামলাটি হলো, পুলিশের কাজে বাধা দেওয়া ও গাড়ি ভাংচুর। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতের আবেদন জানিয়ে সোমবার ঢাকার হাকিম আদালতে হাজির করেন তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার এসআই আবদুর রহমান।

পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার মামলায় ১২ জনের প্রত্যেককে সাতদিন ও তথ্য প্রযুক্তি আইনের মামলায় তারেক আজিজকে ১০ দিন রিমান্ড চান আবদুর রহমান। শুনানি শেষে হাকিম নূর নাহার ইয়াসমিন আসামি তারেক আজিজকে দুই মামলায় দুদিন করে চার দিন এবং বাকি ১১ জনকে দুই দিন করে রিমান্ডের আদেশ দেন। অন্যদিকে শিক্ষার্থীদের পক্ষে জামিন আবেদন করেন ঢাকা বারের সাবেক সম্পাদক মোসলেহ উদ্দিন জসিম।

পুলিশ বলছে, নিরাপদ সড়কের আন্দোলন সময় গুজব ছড়িয়ে আন্দোলন ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার হোতা হলে তারেক আজিজ। গ্রেপ্তারের সময় তাদের কাছে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের মনোগ্রামসহ ১২ সেট পোশাক ও ফিতাসহ নিজেদের বানানো পরিচয়পত্র পাওয়া যায়। এছাড়াও গ্রেপ্তারকৃতদের কাছে হ্যান্ড মাইক, হাতুড়ি, তিনটি ল্যাপটপ, ইসলামী ছাত্রশিবিরের বিভিন্ন নথি, ভিডিও ও স্থির চিত্র পাওয়া গেছে।

Add comment

Security code
Refresh