আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 27 মিনিট আগে

নরসিংদীতে পৃথক স্থানে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। গুলিতে একজন এসএসসি পরীক্ষার্থীসহ নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে তিনে। তবে এলাকাবাসী বলছে, এই ঘটনায় নাম পরিচয়হীন আরো একজন মারা গেছেন।

ssc candidate died in clash

শুক্রবার নরসিংদির রায়পুরা উপজেলার চরাঞ্চল বাঁশগাড়ি ও নীলক্ষায় আলাদা আলাদা এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন আরও ১০ জন। আহতদের মধ্যে অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এরমধ্যে ৩ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন, বাঁশগাড়ি গ্রামের স্থানীয় বাঁশগাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরিক্ষার্থী আবদুল্লাহ ফকিরের ছেলে তোফায়েল রানা (১৬), বীরগাও কান্দাপাড়া গ্রামের ওসামান মিয়ার ছেলে সোহরাব মিয়া (৩০) ও নীলক্ষা ইউনিয়নের গোপিনাথপুর গ্রামের সোবান মিয়ার ছেলে স্বপন (২৭)। 

এলাকাবাসী ও পুলিশ বলছে, দীর্ঘদিন ধরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বাঁশগাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত হাফিজুর রহমান সাহেদ সরকারের সমর্থক এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য ও সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত সিরাজুল হকের সমর্থকদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। দুই পক্ষের হামলা ও পাল্টা হামলায় এর আগে চেয়ারম্যান সিরাজুল হকসহ একাধিক নিহতের ঘটনা ঘটে।

অতীত শত্রুতার জেরে শুক্রবার সকালে বাঁশগাড়ি গ্রামের বালুমাঠ এলাকায় বর্তমান চেয়ারম্যান আশরাফুল হক ও বাবুল মেম্বারের সর্মথক এবং প্রয়াত হাফিজুর রহমান সাহেদ সরকারের সমর্থক জামাল, জাকির ও সুমনের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলেই গুলিবিদ্ধ হয়ে তোফায়েল রানা নিহত হন। আহত হন পেয়েরাকান্দী গ্রামের দুইভাই সুমন (২৮) ও মামুন(২৫)। অন্যদিকে মির্জাচর গ্রামের আহত হন ৬/৭ জন।

পৃথক আরেক ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার নীলক্ষার গোপীনাথপুর বীরগাও কান্দাপাড়া গ্রামে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে সোহরাব মিয়া নামের একজন নিহত হন, আহত হন আরো ৪০ জন।

রায়পুরা থানার ওসি মহসিন জানান, দুই পক্ষের সমর্থকরা বৃহস্পতিবার রাত ৯টা থেকে ১২টার মধ্যে একে ওপরের ওপর হামলা চালায়। এসময় তাদের মধ্যে ধাওয়া, পাল্টা-ধাওয়া ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। কয়েকঘণ্টা বিরতির পর শুক্রবার ভোরে আবারও উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। শুক্রবার ভোর ৬টার দিকে গোলাগুলি চলাকালে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে আসলে তোফাজ্জলের মাথায় গুলি লাগে। পরে নরসিংদী হাসপাতালে নেয়ার পথে ‍সে মারা যায়।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হোসেন বলেন, 'আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বাশঁগাড়ী, নিলক্ষাসহ কয়েকটি গ্রামে বড় ধরনের বিবাদ ছড়িয়ে পড়ে। এসব ঘটনায় ৩ জন নিহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে পুলিশ।

Add comment

Security code
Refresh