আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 11 মিনিট আগে

মেডিকেল সাইন্সের ভাষায় যা প্রায় অসম্ভব ভারতের এক মহিলার ক্ষেত্রে ঠিক তাই ঘটেছে। গত পনের বছর ধরে নিজের অজান্তেই পেটে একটি সন্তান বয়ে নিয়ে বেড়াচ্ছিলেন ওই মহিলা। অস্বাভাবিক দীর্ঘ সময়ের কারণে ওই সন্তানটি এক সময় একটি মাংসপিণ্ডে পরিণত হয়েছে। মেডিকেল সাইন্সের ভাষায় যাকে বলা হয় 'স্টোন বেবি'।

stone baby india

ভারতের মহারাস্ট্র প্রদেশের বাসিন্দা ওই নারীর প্রথম বাচ্চার জন্ম হয় ২০০০ সালে। তার দুই বছর পরে তিনি আবার গর্ভবতী হলে সেই বাচ্চাটিকে আর পৃথিবীতে আনতে চাননি, গর্ভপাত করার সিদ্ধান্ত নেন।

গর্ভপাতের পর থেকে স্বাভাবিক নিয়মেই জীবনযাপন করে আসছিলেন। মাঝে মাঝে পেটে ব্যথা অনুভব করলেও তিনি এসিডিটি সমস্যা ভেবে ওষুধ খেয়ে আসছিলেন। কিন্তু তাতেও কোন ফল পাচ্ছিলেন না। গত তিন বছরে বমির সমস্যা বেড়ে যাওয়ায় তিনি চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন। পরীক্ষা নিরীক্ষার পর জানা যায় তার জরায়ুতে বাচ্চা সদৃশ বস্তু রয়েছে।

তারপর গত মাসের (২৩ নভেম্বর) শেষের দিকে অপারেশন করে চিকিৎসকরা তার জরায়ু থেকে পাথরের মত একটি বাচ্চা বের করে আনেন! যাকে বলা হচ্ছে 'স্টোন বেবি'। চিকিৎসকদের মতে, আগের গর্ভপাতটি সঠিক না হওয়ায় তার কিছু অংশ পেটে থেকে গিয়েছিল আর সেটাই বড় হতে হতে স্টোন বেবির উৎপত্তি। সারা পৃথিবীতে এটি বিরল একটি ঘটনা বলেও জানান তারা।

Add comment

Security code
Refresh