আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 15 মিনিট আগে

চান্দিকা হাথুরুসিংহে কোচ হয়ে আসার কয়েক মাস পরই জাতীয় দল থেকে ছিটকে যান এনামুল হক বিজয়। তবে ওই ছিটকে যাওয়ার জন্য চান্দিকার কোনো দায় দেয়ার সুযোগ নেই। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপের মাঝপথে বিজয় ছিটকে যান মূলত ইনজুরির কারণে। কিন্তু এরপর ফিট হয়ে গেলেও ওয়ানডে দলে আর ফেরা হয়নি তার। ধারণা করা হায়, চান্দিকার অপছন্দ ছিলেন বলেই সুযোগ আসেনি বিজয়ের।

bijoy is not thinking about dislike of former coach

বিজয় অবশ্য এটা মনে করেন না। কোচের অপছন্দ ছিলেন কিনা, সেটা নিয়েও কোনো কিছু ভাবছেন না এই তরুণ। ত্রিদেশীয় সিরিজ সামনে রেখে ঘোষণা করা বাংলাদেশের ১৬ জনের স্কোয়াডে জায়গা পাওয়া বিজয় সোমবার মুখোমুখি হয়েছিলেন সংবাদ মাধ্যমের।

এ সময় কোচের অপছন্দের কারণে জাতীয় দলে সুযোগ না পাওয়া বিষয়ে তাকে প্রশ্ন করা হয়। উত্তরে বিজয় বলেন, ‘কে পছন্দ করলো বা কে অপছন্দ করলো, এ সব নিয়ে একদমই ভাবি না। আসলে পছন্দ-অপছন্দের ব্যাপারটা জোর করে হয় না। আমি কেবল আমার কাজটাই করতে পারি। আর আমার কাজ হলো ভালো খেলা।’

বিজয় সর্বশেষ জাতীয় দলে খেলেছেন ২০১৫ সালের নভেম্বরে। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের সেই ম্যাচে ৪৭ রান করেছিলেন তিনি। কিন্তু এরপর আসর সুযোগ মিলেনি তার। ঘরোয়া পর্যায়ে একের পর এক ম্যাচে ভালো খেললেও সুযোগ পাচ্ছিলেন তিনি।

এ সময়ে একেবারেই হতাশা কাজ করেনি বলে মন্তব্য করেন বিজয়। তিনি বলেন, ‘আসলে কোচ আসবে, কোচ যাবে; কিন্তু আমার সব সময়ই ভালো খেলতে হবে। কোচ নিয়ে চিন্তা করে তাই হতাশ হইনি। আমি বরং আমার খেলাটা উন্নত করতে চেয়েছি। যখন যেখানে সুযোগ পেয়েছি, চেষ্টা করেছি বড় কিছু করার।’

বিজয়ের চেষ্টা যে সফল ছিলো, তার প্রমাণ মিলবে গত দুই বছরে তার ঘরোয়া পর্যায়ের পারফর্ম দেখলে। বিশেষ করে গত এক বছরে ব্যাট হাতে দারুণ ঝলমলে ছিলেন তিনি। এ সময় প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে দুটি ডাবল সেঞ্চুরিসহ এক হাজারের বেশি রান করেন বিজয়। ৫০ ওভারের ক্রিকেটেও ছিলেন ধারাবাহিকভাবে সফল। এমন পারফর্ম্যান্স অবশেষে তাকে দলে ফেরালো এবং চান্দিকার বিদায়ের পরের সিরিজেই!

Add comment

Security code
Refresh