আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 27 মিনিট আগে

পরিবার ও বন্ধুত্ব আমাদের জীবনের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। আমাদের জীবনের অর্ধেক এর বেশি সময় বন্ধুদের সঙ্গেই কাটে। আমাদের সুখ, দুঃখ, হাসি,কান্না সব কিছুর ভাগীদার বন্ধুরা।

friends and family min

ভালো বন্ধু পেলে জীবনটাও হয়ে ওঠে আনন্দময়। তাই বন্ধুত্ব করুন জেনে-বুঝে। চলুন জেনে নেই কাকে বন্ধু বানাবো-

  • মানুষটির আচার-আচরণ যদি আপনার পছন্দমত হয় এবং তাকে আপনি পুরোদমে সমর্থন করতে পারেন তাহলে তাকে বন্ধু বানাতে পারেন।
  • প্রকৃত বন্ধু কখনই ক্ষতিকর হয় না। তাই এমন ধরনের মানুষকে বন্ধু বানানো উচিত যারা সমাজের উপকারের কারণ হয়। কেননা যেকোনো প্রয়োজনে আপনিও উপকৃত হতে পারেন আপনার বন্ধুটির মাধ্যমে। সুতরাং এই স্বভাবের মানুষটিই আপনার বন্ধু হবার যোগ্য।
  • একজন ভালো বন্ধুর প্রথম ও প্রধান শর্ত হলো বন্ধুত্বের সম্পর্কের মাঝে কোনো ধরনের স্বার্থ কিংবা প্রাপ্তির চিন্তা থাকবে না। এ কারণে কোনো ধরনের প্রাপ্তির চিন্তা থেকে নয়, বরং নিজের ভালোলাগা আর ভালোবাসাগুলোকে ভাগাভাগি করে নিতে পারে এমন মানুষকে বন্ধু হিসেবে বাছাই করুন।
  • বন্ধুত্বের মাঝে অল্পতেই ভুল বোঝাবুঝি বা মনোমালিন্য বন্ধুত্বের সম্পর্কের জন্য ক্ষতিকর। সেজন্য একে অপরের সাথে ঝগড়া করলে বা মনে কষ্ট দিয়ে থাকলেও সহানুভূতির সাহয্যে তা মিটিয়ে ফেলতে পারে এমন মানসিকতা সম্পন্ন মানুষ খুঁজে নিন বন্ধু হিসেবে।
  • বন্ধুত্বের মাধ্যমে একে অপরের মনের কথা শেয়ারিং বা ভাগাভাগি করে নেওয়া হয়। এই শেয়ারিংটা দুপক্ষের হলে বন্ধুত্ব মজবুত হয়। কাজেই আপনার কথা শুনতে চাইবার মানসিকতাটাও থাকা জরুরি আপনার বন্ধুটির।
  • যে আপনাকে মূল্যায়ন করে, শ্রদ্ধা করে, আপনার চিন্তাভাবনা ও মূল্যবোধের গুরুত্ব দেয়, কম্প্রোমাইজ করার ক্ষমতা থাকে ও আপনাকে মানসিক সমর্থন দিতে পারে এমন মানুষটি আপনার বন্ধু হতে যোগ্য।
  • জীবনকে পজেটিভভাবে দেখতে শেখায় এমন মানুষেরা জীবনের সব কিছুকেই পজেটিভভাবে দেখতে শেখায়। তাদের জীবনের সব কিছুকে তারা পজেটিভলি দেখে তাই আপনাকেও তা-ই শেখাবে। তাই এমন বন্ধুকে স্বাগতম জানান আপনার জীবনে। এ রকম বন্ধুই কাম্য হওয়া উচিৎ।

বন্ধুত্ব মানে তো সব, তাই না? তাহলে বুঝে শুনে বন্ধুত্ব করুন।

 

আপনি আরও পড়তে পারেন

রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন

সামনের ব্যক্তি মিথ্যে বলছে কি না, কীভাবে বুঝবেন?

বন্ধু তুই কোথায় আছিস

Add comment

Security code
Refresh