advertisement
আপনি পড়ছেন

সরকার রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিল না করলে আগামী ২৬ জানুয়ারি ঢাকায় অর্ধদিবস সর্বাত্মক ধর্মঘট ও হরতাল কর্মসূচি পালন করবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি।

rampal location

শনিবার সুন্দরবন রক্ষার দাবিতে ডাকা মহাসমাবেশ থেকে এই ঘোষণা দেন জাতীয় কমিটির নেতারা। এছাড়া সমাবেশ শেষে নতুন পাঁচটি কর্মসূচি ঘোষণা করেন কমিটির সদস্যসচিব আনু মুহাম্মদ।

সমাবেশে রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিল না হওয়া পর্যন্ত কঠোর আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে বলে জানান বক্তারা। এছাড়া এ আন্দোলন যে কোনো সময় সরকারবিরোধী আন্দোলনে রূপ নিতে পারে সরকারকে হুঁশিয়ারি প্রদান করা হয়।

কমিটি আগামী ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস পালনের ক্ষেত্রে সুন্দরবন রক্ষা এবং রামপাল প্রকল্প বাতিলের দাবিকে প্রাধান্য দিতে দেশবাসীকে অনুরোধ করেছেন। তারা জানায়, কমিটিও এই দুটি দিবস পালন করার মধ্য দিয়ে দাবি দিবস পালন করবে।

ভারতের অনেকগুলো সংগঠন রামপাল প্রকল্প বাতিলের দাবিতে সমর্থন জানিয়েছে উল্লেখ করে আনু মোহাম্মদ সমাবেশে জানান, ভারত, বাংলাদেশসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ৭ জানুয়ারি বিশ্ব প্রতিবাদ দিবস পালিত হবে।

তারপর ১৪ জানুয়ারি দেশের বিশিষ্ট জ্বালানি বিশেষজ্ঞরা একটি মহাপরিকল্পনা উপস্থাপন করবেন। সেটিতে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিল করে কীভাবে দেশে জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায় তা উপস্থাপন করা হবে। তারপরও সরকার রামপাল প্রকল্প বাতিল না করলে ২৬ জানুয়ারি ঢাকায় অর্ধদিবস সর্বাত্মক ধর্মঘট ও হরতাল কর্মসূচি পালন করা হবে।

আপনি আরো পড়তে পারেন

খুব শিগগিরই মন্ত্রিসভায় রদবদল!

রোহিঙ্গা নির্যাতনের বিরুদ্ধে হিজড়াদের প্রতিবাদ

ভারতে 'সার্জিক্যাল স্ট্রাইক' অভিযান চালাবে পাকিস্তান?

ছবি এবং ভিডিওতে দেখুন ইসরায়েলের ভয়াবহ দাবানল

ওবায়দুল কাদের: দেশে আরও নারী ড্রাইভার দরকার