advertisement
আপনি দেখছেন

গাবতলীসহ বিভিন্ন পশুর হাটে অবৈধ চাঁদাবাজি, অতিরিক্ত খাজনা, চামড়া বিক্রিতে অব্যবস্থাপনাসহ বিভিন্ন সমস্যার সমাধান ১৫ দিনের মধ্যে না করলে আবারও মাংস বিক্রি বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। অর্থাৎ, ব্যবসায়ীদের দাবি মানা না হলে রোজার প্রথম দিন থেকেই মাংস থাকবে না বাজারে!

meat traders in dhaka

আজ রোববার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেন মাংস ব্যবসায়ী সমিতির মহাসচিব রবিউল আলাম।

তিনি বলেন, 'আগামী ১৫ দিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান না হলে ১ রমজান থেকে সারা দেশের মাংস ব্যবসায়ীরা কর্মবিরতিতে যাবে।' রবিউল আলম যোগ করেছেন, 'দাবি পূরণ না হলে তাদের ঘোষিত কর্মবিরতি ধর্মঘটে রূপ নিতে পারে।'

তিনি আরও বলেন, 'দাম বেশি হওয়ার কারণে গরু ও খাসির মাংস খাওয়া ছেড়ে দিয়েছেন সাধারণ মানুষ। ফলে মাংস বিক্রি কমে গেছে। বাংলাদেশে অর্ধেকের বেশি মাংসের দোকান বন্ধ হয়ে গেছে। পরিস্থিতি এমন দাঁড়িয়েছে যে আন্দোলনের বিকল্প নেই।'

মাংস ব্যবসায়ীদের দাবি, অবৈধ চাঁদাবাজি, অতিরিক্ত খাজনা আদায়, চামড়ার দাম কমসহ ইত্যাদি বিষয়ের জন্য মাংসের দাম বৃদ্ধি হয়েছে। এসব কমিয়ে দিলে তারা মাংসের দামও নাগালের মধ্যে নিয়ে আসতে পারবেন।

এর আগে এইসব দাবিতে চলতি বছরের ১৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত মাংস বিক্রি বন্ধ রেখেছিল মাংস ব্যবসায়ীরা।