advertisement
আপনি দেখছেন

প্রকাশ পেলো এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল। গত বছরের তুলনায় এবার কমেছে পাশের হার। এবার সবচেয়ে বেশি পাশের হার রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডে। সবচেয়ে কম কুমিল্লায়।

ssc exam hall

আজ সকাল ১০টায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফলাফলের অনুলিপি তুলে দেন। এ সময় তিনি জানান যে, গতবারের তুলনায় এবার কমেছে পাশের হার। জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীও এবার কম। দেশের ১০ শিক্ষাবোর্ডের গড় পাশের হার ৮০.৩।

১০ শিক্ষাবোর্ডের সাধারণ আট বোর্ডের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৯০.৭০ শতাংশ শিক্ষার্থী পাশ করেছে রাজশাহী বোর্ডে। এই বোর্ড থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১৭ হাজার ৩৪৯ জন শিক্ষার্থী।

রাজশাহীর পরে সবচেয়ে বেশি পরীক্ষার্থী সফল হয়েছে ঢাকা শিক্ষাবোর্ড থেকে। এ বোর্ডের পাশের হার ৮৬. ৩৯ শতাংশ। ঢাকা বোর্ডের ৪৯ হাজার ৪৮১ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছেন।

চট্টগ্রাম বোর্ড থেকে পাশ করেছেন ৮৩.৯৯ শতাংশ শিক্ষার্থী। এই বোর্ডের জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থী হলেন আট হাজার ৩৪৪ জন। দিনাজপুর বোর্ড থেকে পাশ করেছেন ৮৩.৯৮ শতাংশ শিক্ষার্থী। ছয় হাজার ৯৩৯ জন শিক্ষার্থী দিনাজপুর বোর্ড থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছেন।

সিলেট শিক্ষাবোর্ডে ৮৯.২৬ শতাংশ শিক্ষার্থী পাশ করেছেন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন দুই হাজার ৬৬৩ জন। যশোর শিক্ষাবোর্ডে পাশের হার ৮০.০৪ শতাংশ। এই বোর্ড থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ছয় হাজার ৪৬০ জন শিক্ষার্থী। বরিশাল বোর্ড থেকে পাশের হার ৭৭.২৪ শতাংশ। এই বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছেন দুই হাজার ২৮৮ জন।

এবারের এসএসসি পরীক্ষায় সবচেয়ে কম পাশের হার কুমিল্লায়। এই বোর্ড থেকে ৫৯.০৩ শতাংশ শিক্ষার্থী পাশ করেছেন। জিপিএ-৫ পেয়েছেন চার হাজার ৪৫০ জন।

অন্য দুটি বোর্ডের মধ্যে মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডের পাশের হার ৭৬.২০ শতাংশ। এই বোর্ড থেকে দুই হাজার ৬১০ জন পরীক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছেন। আর কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের পাশের হার ৭৮.৬৯ শতাংশ। এই বোর্ড থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছেন মোট চার হাজার ১৮৭ জন।

সব মিলিয়ে ১০ শিক্ষাবোর্ডের মোট পাশের হার ৮০.৩৫ শতাংশ। গত বছর এই হার ছিলো ৮৮ শতাংশের বেশি। আর এবার জিপিএ-৫ পেয়েছেন এক লাখ চার হাজার ৭৬১ জন। যা গত বছরের তুলনায় পাঁচ হাজারের বেশি কম। শিক্ষামন্ত্রী বলছেন, খাতা দেখার পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনার প্রভাব পড়েছে ফলাফলে।