advertisement
আপনি দেখছেন

পাটের বহুমুখী ব্যবহার ও সম্প্রসারণ এবং পরিবেশ সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে আগামী ১৫ মে থেকে সারাদেশে শুরু হতে যাচ্ছে বিশেষ অভিযান। বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে এই অভিযানে পাটের ব্যাগের পক্ষে এবং পলিথিন ব্যাগ ব্যবহারের বিরুদ্ধে অভিযান চালানো হবে।

jut sacks

মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে সপ্তাহব্যাপী এই অভিযান সারাদেশের সড়ক ও নৌপথ, স্থলবন্দর, মালামাল পরিবহন যানবাহন, উৎপাদনকারী, প্যাকেটজাতকারী, আমদানি ও রফতানিকারক প্রতিষ্ঠানে চলবে বলে জানা গেছে।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মঙ্গলবার বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এবং মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ সংস্থা এবং স্টেকহোল্ডাদের এক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এর আগে পাটের বহুমুখী ব্যবহার ও সম্প্রসারণ এবং পরিবেশ সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে ২০১০ সালে প্রণীত আইন অনুযায়ী নতুন আরও ১১টি পণ্যে পাটের ব্যাগ ব্যবহার বাধ্যতামূলক করে সরকার।

এর মধ্যে পেঁয়াজ, মরিচ, আদা, রসুন, হলুদ, তুষ-খুদ-কুড়া, ডাল, ধনিয়া, আলু, আটা ও ময়দাসহ মোট ১৭টি পণ্যের মোড়ক হিসেবে বাধ্যতামূলকভাবে পাটের ব্যাগ ব্যবহার করতে হবে।

এর আগে ২০১৫ সালে ছয়টি পণ্য যথা, ধান, চাল, গম, সার, ভুট্টা ও চিনি পরিবহনে পাটের বস্তার ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল।

পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এই ১৭টি পণ্যে পাটের ব্যাগের ব্যবহার নিশ্চিত করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০১০ সালে প্রণীত পাটের বহুমুখী ব্যবহার ও সম্প্রসারণ এবং পরিবেশ সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী উল্লেখিত ১৭টি পণ্য ২০ কেজির বেশি একসাথে মোড়ক করতে হলে পাটের ব্যাগ ব্যবহার করতে হবে। এই আইন অমান্যে এক বছরের কারাদণ্ড বা ৫০ হাজার টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডের বিধান এবং দ্বিতীয়বার অমান্যে শাস্তি দ্বিগুণ হবে।