advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 12 মিনিট আগে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) নবনির্বাচিত নেতৃত্ব সাক্ষাৎ করবেন। আজ শনিবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এ সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হবে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

ducsu vp gs agsভিপি নূর, জিএস রাব্বানী, এজিএস সাদ্দাম

গত ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচনে ২৫টি পদের মধ্যে ২৩টিতেই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগের দেয়া প্যালেনের প্রার্থীরা বিজয়ী হন। বাকি দুটি পদে কোটা সংস্কার আন্দোলনের প্রার্থীরা জয় পান।

শীর্ষ পদগুলোর মধ্যে ডাকসুর সহসভাপতি (ভিপি) পদে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা নুরুল হক নূর, সাধারণ সম্পাদক (জিএস) পদে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী এবং সহসাধারণ সম্পাদক (এজিএস) পদে সংগঠনটির ঢাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইন নির্বাচিত হয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে ডাকসুর ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন অধিকাংশ পদে বিজয়ী হয়।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণে গণভবনের এ সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানে শেষ পর্যন্ত যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ডাকসুর নতুন ভিপি নুরুল হক নূর। তবে একই সঙ্গে পুনঃনির্বাচনের দাবিতে চলমান আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ারও ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ছাত্রলীগ থেকে নির্বাচিত মুক্তিযুদ্ধ সম্পাদক সাদ বিন কাদের, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক আরিফ ইবনে আলী, কমনরুম ও ক্যাফেটরিয়া সম্পাদক বিএম লিপি আক্তার, আন্তর্জাতিক সম্পাদক শাহরিমা তানজিনা অর্নি, সাহিত্য মাজহারুল কবির শয়ন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক আসিফ তালুকদার, ক্রীড়া সম্পাদক শাকিল আহামদ তানভীর, ছাত্র পরিবহন সম্পাদক শামস-ই-নোমান গণভবনে যাচ্ছেন।

এছাড়া সদস্য পদে ছাত্রলীগ থেকে নির্বাচিত চিবল সাংমা, নজরুল ইসলাম, রাকিবুল হাসান, রাকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য, তানভীর হাসান সৈকত, রাইসা নাসের, সাবরিনা ইতি, ফরিদা পারভীন, নিপু ইসলাম তন্বী, হাইদার মোহাম্মদ জিতু, তিলোত্তমা শিকদার, জুলফিকার আলম রাসেল ও মাহমুদুল হাসান এ সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, ১১ মার্চ সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনে ১৮টি আবাসিক হলে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। এতে জাল ভোট, কারচুপি ও নানা অনিয়মের অভিযোগ এনে ছাত্রলীগ ছাড়া প্রায় সকল প্যানেল ও সতন্ত্র প্রার্থীরা নির্বাচন বর্জন করেন। পুনঃনির্বাচনের দাবিতে তারা সম্মিলিতভাবে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন।

sheikh mujib 2020