advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 15 মিনিট আগে

ফেনীর মাদরাসা ছাত্রী নুসরাতকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টায় মাদরাসার অধ্যক্ষ এএসএম সিরাজ উদদৌলাকে সাত দিনের রিমান্ডে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। সেই সাথে ওই মাদরাসার ইংরেজির প্রভাষক আবছার উদ্দিন ও অধ্যক্ষের সহযোগী আরিফুল ইসলামের পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে ফেনীর আদালত। বুধবার শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরীফ উদ্দিন আহমেদ এ আদেশ দেন।

feni principle remand

এর আগে ওই তিন আসামিকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সোনাগাজী মডেল থানার পরিদর্শক কামাল হোসেন।

প্রসঙ্গত, শনিবার সকালে আলিম পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসায় যান নুসরাত। এ সময় তার বান্ধবী নিশাতকে ছাদের ওপর কেউ মারধর করেছে- এক ছাত্রীর এমন সংবাদে ভবনের চার তলায় যান তিনি।

ছাদে বোরকা পরা ৪-৫ জন তাকে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে আনা শ্লীলতাহানির মামলা ও অভিযোগ তুলে নিতে নুসরাতে চাপ দেয়। এতে অস্বীকৃতি জানালে তার গায়ে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায় তারা।

এ ঘটনা গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন নুসরাতের উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনে সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা নেয়ার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কিন্তু লাইফ সাপোর্টে থাকা নুসরাতে এখনই সিঙ্গাপুরে নেয়া সম্ভবন নয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে এ ঘটনায় নুসরাতের ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান সোমবার রাতে অধ্যক্ষ সিরাজ ও পৌর কাউন্সিলর মুকছুদ আলমসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে সম্পূরক এজাহার দাখিল করেছেন।

এর আগে নুসরাতের মা বাদী হয়ে নুসরাতের শ্লীলতাহানির অভিযোগ এনে অধ্যক্ষ সিরাজের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পুলিশ তাকে ২৭ মার্চ গ্রেপ্তার করে। ইউএনবি।

sheikh mujib 2020