advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 12 মিনিট আগে

আত্মহত্যার আগে সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) লুৎফুর রহমানের লিখা দুই পৃষ্ঠার একটি ‘সুইসাইডাল নোট’ উদ্ধার করেছে পুলিশ। জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ মঈনুল জাকির জানান, বুধবার সকালে নিজ বাসা থেকে ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারের পর ওই কক্ষ থেকেই ইংরেজিতে লেখা নোটটি উদ্ধার করা হয়। পুলিশ এটি জব্দ করেছে।

engineer lutfur rahman

এটাকে লুৎফুর রহমানের ‘সুইসাইডাল নোট’ হিসেবে মনে করছে পুলিশ। এই নোটে মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে কিছু লেখা নেই। মা, স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে লিখেছেন লুৎফুর রহমান। এছাড়া সম্পত্তির বিবরণ ও ভাগবাটোয়ারা নিয়ে কিছু কথা লেখা রয়েছে। ওই নোটে স্ত্রীর প্রতি নিজের ভালোবাসার কথাও উল্লেখ করেছেন সিলেট গ্যাস ফিল্ডের এই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

সুইসাইডাল নোটে লেখা রয়েছে -‘মা আমি তোমাকে খুব ভালোবাসি। আমার জন্য তুমি অনেক কষ্ট সয়েছো। কিন্তু তোমার যে পরিমাণ সেবা শুশ্রুষা করার দরকার ছিল আমি তা করতে পারিনি। তারপরও আমি বিশ্বাস করি তুমি আমাকে ভালোবাসো। তুমি পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মা। আমাকে ক্ষমা করে দিও।’

নিজর ৪ একরের মতো জমি থাকার কথা উল্লেখ করে তা মা, স্ত্রী ও সন্তানদের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা করে দেওয়ার কথা লিখেছেন লুৎফুর রহমান। এ ব্যাপারে দুই বন্ধুর নাম উল্লেখ করে তাদেরকে সহযোগিতা করতে বলেছেন তিনি।

মা ও সন্তানরা যাতে সম্পত্তি ভাগ থেকে বঞ্চিত না হয় এ ব্যাপারে নজর রাখতেও অনুরোধ করেছেন। এছাড়া তার সন্তানদের প্রতি খেয়াল রাখতে নিজের ভাই ও বোনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

ওসি জানান, ইংরেজিতে লেখা ওই নোটবুকে পরিবারের সদস্য, বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজনের বিষয়ে বেশি আলোকপাত করেছেন ওই কর্মকর্তা।

তিনি জানান, এ ঘটনায় বুধবার রাতে একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু হয়েছে। নিহতের ছেলের দাখিলকৃত অভিযোগটি ইউডি মামলা হিসাবে রেকর্ড করা হয়েছে।

এদিকে, প্রকৌশলী লুৎফুর রহমানের প্রথম জানাজা বুধবার রাত আটটায় নগরীর হযরত মানিকপীর (রহ.) মাজার প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে মরদেহ নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছেন তার স্বজনরা।

বুধবার সকাল ১০টার দিকে জৈন্তাপুর উপজেলার হরিপুরে অবস্থিত সিলেট গ্যাস ফিল্ডের বাংলোয় নিজ কক্ষে তার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। পরে বিকাল ৩টার দিকে সিআইডির ক্রাইমসিন ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ নামিয়ে সুরতহাল শেষ করে।

বিকালে সিলেট ওসমানী হাসপাতালের মর্গে এ প্রকৌশলীর লাশের ময়না তদন্ত করা হয় বলে জানান জৈন্তাপুর থানার ওসি খান মো: মঈনুল জাকির। ময়নাতদন্তের পর সন্ধ্যায় মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় মানিকপীর গোরস্থানে। সেখানে লাশের গোসল ও কাফন পরানোর পর প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজা শেষে লুৎফুর রহমানের ভগ্নিপতি অব. মেজর শরাফত ও ছেলে গালিব ইয়াসার রহমান মরদেহ নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। সেখানে আজ বৃহস্পতিবার পেট্রোবাংলা কার্যালয়ে দ্বিতীয় জানাজা শেষে ময়মনসিংহের গ্রামের বাড়িতে তাকে দাফন করা হবে বলে জানিয়েছেন নিহতের ভগ্নিপতি অব. মেজর শরাফত।

প্রকৌশলী লুৎফুর রহমান (৫৫) ময়মনসিংহ জেলার বাসিন্দা। তিনি ২০১৮ সালের ৮ এপ্রিল সিলেট গ্যাস ফিল্ডস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে তার স্ত্রী ঢাকায় থাকেন।

স্থানীয়রা জানান, প্রতিদিন সকাল ৯টায় সিলেট ফিল্ডস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী লুৎফুর রহমান অফিসে আসেন। বুধবার সকাল ১০টায় অফিসে না আসায় অফিসের লোকজন তার বাসায় খোঁজ নেন। এ সময় বাসায় লুৎফুর রহমানের ঝুলন্ত লাশ দেখে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। ইউএনবি।

sheikh mujib 2020