advertisement
আপনি দেখছেন

‘ছাত্রদলের পদ নিতে ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর তদবির করছেন’ এমন অভিযোগ তুলেছেন ডাকসুর এজিএস ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। এমন অভিযোগের উত্তরে ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, সাদ্দাম হোসেন মানিসকভাবে অসুস্থ, তার ডাক্তার দেখানো উচিৎ।

vp nur ags saddamবামে ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর এবং ডানে এজিএস সাদ্দাম হোসেন

রোববার দুপুরে ডাকসুর কনফারেন্স রুমে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলনে এমন প্রশ্ন তুলেছেন সময়ের আলোচিত দুই ছাত্রনেতা। সাদ্দামের অভিযোগের প্রেক্ষিতে নুর বলেন, এজিএস যে অভিযোগ করেছেন তা মিথ্যাঅ এটি আসলে এক ধরণের প্রোপাগান্ডা। শুরু থেকেই নানাভাবে প্রোপাগাণ্ডা চালিয়ে আসছে তারা। মূলত আমাদের জনপ্রিয়তায় ইর্ষান্বিত হয়েই তারা এমনটা করছে।

নুরুল হক নুর বলেন, ‘ডাকসুর ভিপি পরিচয়টাই অ্যানাফ (যথেষ্ট)। ছাত্রদল বা ছাত্রলীগের পরিচয় তার লাগবে না। অতীতে তারা বলেছিল, জামায়াত-শিবির ও বিএনপির উসকানিতেই আমরা আন্দোলন করি। কিন্তু আমরা স্পষ্ট জানিয়ে দিতে চাই, কারো এজেন্ডা নিয়ে আমরা ডাকসুতে আসিনি। এমন কথাবার্তা পাগলের প্রলাপ ছাড়া কিছু নয়।

তিনি বলেন, ‘সাদ্দাম পুরোপুরি সুস্থ নেই। আমার ধারণা তিনি এখনও অসুস্থ। মানসিকভাবেও তিনি পুরোপুরি সুস্থ নন। সে হয়তো মানসিকভাবে নানা টেনশনে আছে। এখনো পুরোপুরি সুস্থ হতে পারেনি। এ জন্য বিভিন্নরকম কথা বলেছে। তাকে জিজ্ঞাসা করলেই বোঝা যাবে, সে সুস্থ কিনা। তার ভালো ডাক্তার দেখানো উচিৎ।

সাদ্দামকে ইঙ্গিত করে নুর বলেন, ‘যারা এমন গুজব ছড়াচ্ছে, তারা নিজেরাই নৈতিকভাবে প্রশ্নবিদ্ধ। আমার অবাক লাগে, একজন ছাত্র প্রতিনিধি সাত বছর ফেল করেছে। তারপরও অনার্সের দরজা পার হতে পারেনি। সুতরাং তার মুখ থেকে কোনো নীতি কথা আশা করা যায় না। এমন ধরনের বেফাঁস কথাবার্তা তার মুখ থেকে আসাটা অতোটা অস্বাভাবিক নয়।

নুরের আগে সংবাদ সম্মেলন করে ডাকসুর সহ-সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন অভিযোগ করেন, নুর ছাত্রদের জন্য রাজনীতি না করে নিজের রাজনীতি নিয়েই ব্যস্ত। ক্যাম্পাসে খুব বেশি সময় দেন না। শুনেছি, তিনি ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ নিতে লবিং-তদবির করতেই ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে। যেহেতু ছাত্রদল বিবাহিতদের সংগঠন, তাই নুর সেখানে ভালো পদ পেতে পারে।