advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 14 মিনিট আগে

কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোনো সরকারি কর্মচারী অফিসে অনুপস্থিত থাকলে তার বেতন কর্তন করা হবে বলে নতুন বিধিমালা জারি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ‘সরকারি কর্মচারী (নিয়মিত উপস্থিতি) বিধিমালা, ২০১৯’ নামে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে গেজেট আকারে এটি প্রকাশ করা হয়।

jonoprosashon ministry bd

বিধিমালায় বলা হয়েছে, কোনো কর্মচারী অফিসে অনুপস্থিত থাকলে, তাকে কারণ দর্শানোর যুক্তিসংগত সুযোগ দিতে হবে। এরপর তার প্রতিদিনের অনুপস্থিতির জন্য একদিনের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ কেটে নেয়া হবে।

এতে আরো বলা হয়েছে, কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোনো সরকারি কর্মচারী অফিস ত্যাগ করতে পারবে না। তবে জরুরি প্রয়োজনে অফিস ত্যাগের ক্ষেত্রে সহকর্মীকে অবশ্যই অবগত করে যেতে হবে। সংরক্ষিত রেজিস্টারে অফিস ত্যাগের কারণ, সময়, তারিখ ইত্যাদি উল্লেখ করতে হবে। এছাড়াও কেউ যদি ৩০ দিনের মধ্যে একাধিকবার বিনা অনুমতিতে অফিসে অনুপস্থিত থাকে, সেক্ষেত্রে আরো অতিরিক্ত সাতদিনের মূল বেতনের সমপরিমাণ অর্থ কাটা হবে।

বিধিমালা অনুযায়ী, কোনো কর্মচারীর বেতন কাটা হলে তিনি তিন কার্যদিবসের মধ্যে উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের কাছে আদেশ পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদন করতে পারবেন। তখন আদেশ প্রদানকারী কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট কর্মচারীকে শুনানির যুক্তিসঙ্গত সুযোগ দিয়ে বেতন কর্তনের আদেশ সংশোধন বা বাতিল রাখতে পারবে।

প্রসঙ্গত, মূলত ‘গণকর্মচারী শৃঙ্খলা (নিয়মিত উপস্থিতি) অধ্যাদেশ, ১৯৮২’ পরিমার্জন করে নতুন বিধিমালাটি প্রণয়ন করা হয়েছে।

sheikh mujib 2020