advertisement
আপনি দেখছেন

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের ভূইয়াগাঁতি পুরাতন সেতুর পাটাতন দেবে গেছে। এমতাবস্থায় বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে মহাসড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়।

sirajgonj bogura highway

উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার এই মহাসড়কটিতে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়ায় উত্তরাঞ্চলের ৯ জেলার (রংপুর, দিনাজপুর, নীলফামারী, কুড়িগ্রাম, ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, সৈয়দপুর, বগুড়া) যানবাহনগুলোকে বিকল্প পথে দীর্ঘ রাস্তা ঘুরে চলাচল করতে হচ্ছে। এতে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে চলাচলকারী যাত্রী ও চালকরা।

জানা যায়, ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কটিকে ফোর লেনে উন্নীত করার কাজ শুরু হয়েছে। এর অংশ হিসেবে প্রায় ৭০ বছর আগের পুরতন ওই সেতুর পাশ দিয়ে কোন বাইপাস সড়ক নির্মাণ না করেই নতুন আরেকটি সেতু নির্মাণের কাজ চলছে। যার ফলে পুরাতন সেতুর নিচের মাটি সরে গিয়ে সেটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছিল। 

সেতু দেবে যাওয়ার পর এ মহাসড়কে চলাচলকারী যানবাহনগুলোকে বিকল্প পথ হিসেবে বগুড়ার ধনুট হয়ে সিরাজগঞ্জ-রায়গঞ্জ আঞ্চলিক সড়ক ও কাজিপুর সড়ক দিয়ে সিরাজগঞ্জ সড়ক হয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে চলাচল করতে হচ্ছে। এছাড়াও ঢাকা-উত্তরবঙ্গগামী যানবাহনগুলো নাটোর হয়ে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়ক দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে।

sirajgonj bogura highway 2

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সিরাজগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আশরাফুল ইসলাম প্রামাণিক বলেন, ৪-৫ দিন আগেই সেতুটির পাটাতন ৫-৬ ইঞ্চি দেবে গিয়েছিল। এরপর ঝুঁকি নিয়েই এই কয়দিন সেতুটি দিয়ে যান চলাচল অব্যহত ছিল। কিন্তু বুধবার ভোরে সেতুটির পাটাতন ২-৩ ফুট দেবে গেলে নিরাপত্তার কারণে সন্ধ্যা থেকে সেতুটিতে যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

তিনি আরো বলেন, সেতু মেরামত বা বিকল্প সেতু নির্মাণ না হওয়া পর্যন্ত আপতত কিছুদিন ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে চলাচলকারী যানবাহনগুলোকে বিকল্প পথে চলাচলের জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। দ্রুত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী বলেন, পাটানত দেবে যাওয়ার পর সেতুটি দিয়ে কোন ধরণের যান চলাচল করতে পারছে না। ফলে যানবাহনগুলোকে বিকল্প পথে চলাচল করতে হচ্ছে। তাই বিকল্প সেসব সড়কে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে।