advertisement
আপনি দেখছেন

বাংলাদেশ থেকে দক্ষ জনশক্তি নিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করেছে কাতার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে কাতারের সফররত প্রতিমন্ত্রী সুলতান বিন সাদ আল-মুরাইখি এ আগ্রহ প্রকাশ করেন।

sheikh hasina qatari minister

প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় সংসদ কার্যালয়ে রোববার সন্ধ্যায় বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এ কথা জানান।

কাতারের প্রতিমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে তিনি বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশ থেকে চিকিৎসক, প্রকৌশলী এবং অন্যান্য দক্ষ জনশক্তি নিয়োগ করতে চাই।’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে কাতারের প্রতিমন্ত্রী বলেন, তার দেশ এই ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখবে।

এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী আবারও রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশের অর্থনীতির ‘বোঝা’ হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি প্রশ্ন করেন, ‘তারা (রোহিঙ্গারা) আমাদের অর্থনীতির বোঝা এবং আমরা এই বিশাল সংখ্যক মিয়ানমার নাগরিককে আমাদের দেশে কত দিন রাখব?’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘মিয়ানমার বাংলাদেশ থেকে তাদের নাগরিকদের ফিরিয়ে নিতে রাজি হলেও সে অনুযায়ী কাজ করেনি।’

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব বলেন, সাদ আল-মুরাইখি দু’দেশের মধ্যে শিক্ষাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে সহযোগিতা জোরদারের ওপর জোর দেন। তিনি বলেন, ‘অনুসন্ধান করা হয়নি এমন অনেক ক্ষেত্র রয়েছে যা অর্থনৈতিক সহযোগিতার জন্য অনুসন্ধান করতে হবে।’

বাংলাদেশে কাতারের প্রতিমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা মুসলিম দেশগুলোর সঙ্গে আমাদের সম্পর্ককে গুরুত্ব দিই এবং আমরা একসঙ্গে উন্নয়নের ক্ষেত্রগুলো খুঁজে দেখতে পারি।

প্রধানমন্ত্রী দুই দেশের পারস্পরিক স্বার্থে বাংলাদেশে কাতারের আরও বিনিয়োগ কামনা করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা দেশজুড়ে ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করছি। কাতারের উদ্যোক্তারা এই অঞ্চলগুলোতে বিনিয়োগ করতে পারেন।’

শেখ হাসিনা কাতারের আমিরকে ‘মুজিব বর্ষে’ বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানিয়ে বলেন, ‘জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের সময় আমরা তাকে স্বাগত জানাতে পারলে আনন্দিত হবো।’

বৈঠকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আহমেদ কায়কাউস এবং ঢাকায় কাতারের রাষ্ট্রদূত আহমেদ মোহাম্মদ নাসের আল-দেহাইমি উপস্থিত ছিলেন।

sheikh mujib 2020